আমার বাংলা ব্লগঃরেসিপি–ওল-কচু দিয়ে মজাদার হাঁসের মাংস রান্না

2개월 전

আজ ১৮ই ভাদ্র, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,শরৎকাল
২রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,বৃহস্পতিবার

আসসালামু আলাইকুম
শ্রদ্ধেয় ভাই ও বোনের আশা করি সবাই ভালো আছেন।আমিও আল্লাহর অশেষ রহমতে ভালো আছি।প্রতিদিনের ন্যায় আজকেও আপনাদের সামনে নতুন একটু রেসিপি নিয়ে হাজির হয়েছি।রেসিপিটা মুলত হাঁসের মাংসের তবে মাংসের স্বাদটা বাড়ানোর জন্য আমি ওল-কচু ব্যাবহার করেছি।এতে মাংসের স্বাদের সাথে সাথে পুষ্টিগুণও অনেক বৃদ্ধি পায়।তো চলুন আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক আমাদের রেসিপিটি-

ওল-কচু দিয়ে মজাদার হাঁসের মাংস রান্না

20210901_090705-1.jpg

হাঁসের মাংস রান্নার জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণাদি নিম্নে দেওয়া হলোঃ

১.হাঁসের মাংস(১ কেজি পরিমাণ)
২.ওল-কচু(আধা কেজি পরিমাণ)
৩.মরিচের গুড়া
৪.হলুদের গুড়া
৫.লবণ
৬.ধনিয়ার গুড়া
৭.আদা
৮.জিরা-মশলা
৯.পেঁয়াজ
১০.রসুন
১১.তৈল

রেসিপি তৈরির প্রক্রিয়াটি নিম্নে ধাপে ধাপে ছবিসহ বর্ণনা করা হলোঃ

প্রথম ধাপঃ
প্রথমে হাঁসের মাংসগুলো ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।

20210901_075912-1.jpg

দ্বিতীয় ধাপঃ
এরপর ওলগুলো গোল করে কেটে ভালোভাবে পরিষ্কার পানিতে ধুয়ে নিতে হবে।

20210901_080105-1-1.jpg

তৃতীয় ধাপঃ
এবার কড়াইয়ে পরিমাণমতো তৈল দিয়ে তা হালকা গরম হবার পর সেখানে কেটে রাখা ওল গুলো ছেড়ে দিতে হবে।ছাড়ার পরপরই কড়াইয়ের ভিতর লবণ,মরিচের গুড়া এবং হলুদের গুড়া দিয়ে ওলগুলো ৫ মিনিট সময় পর্যন্ত ভালোভাবে নাড়তে হবে।
20210901_080238.jpg

20210901_080341.jpg

চতুর্থ ধাপঃ
এবার আদা,পেঁয়াজ,রসুন,জিরা -মশলা গুলো মিহি করে বেটে নিতে হবে।

20210901_080652.jpg

পঞ্চম ধাপঃ
এরপর আবার কড়াইয়ে পরিমাণমতো তৈল নিয়ে বেটে রাখা উপকরণগুলো কড়াইয়ে ঢেলে দিতে হবে।এবার লবণ, ঝালের গুড়া,হলুদের গুড়া এবং ধনিয়ার গুড়া মশলার মিশ্রগুলোর ভিতর দেওয়ার পর সামান্য পরিমাণ পানি দিয়ে ভালোভাবে নাড়তে হবে।

20210901_081105.jpg

ষষ্ঠ ধাপঃ
৫ মিনিট পর দেখা যাবে মশলাগুলো থেকে একটি তৈল জাতীয় পদার্থের নিঃসরণ ঘটছে তখনই কড়াইয়ের ভিতর হাসের মাংসগুলো ছেড়ে দিতে হবে।

20210901_081256.jpg

সপ্তম ধাপঃ
এবার মাংশের ভিতর মশলার পানি শুকিয়ে যাবার পর এর ভিতর কেটে রাখা ওলগুলো ঢেলে দিতে হবে।এবার কিছু সময় নাড়াচাড়া করতে হবে।এবার ওলগুলোর সাথে মাংসের মশলাগুলো মিশে যাবার পর এতে পরিমাণমতো অর্থাৎ মাংসের পরিমাণের উপর ডিপেন্ড করে এতে মাংসের কতটুকু ঝোল হবে সেই ভিত্তীতে কড়াইয়ে পানি ঢালতে হবে।

20210901_082141.jpg

20210901_082404.jpg

অষ্টম ধাপঃ
এবার কড়াইয়ে পানি ফুটতে শুরু করলে তা কড়াই থেকে নামিয়ে প্রেশার কুকারে ঢেলে দিতে দিতে হবে।
এবার প্রেশার কুকারে ৪ টা শিস(বাঁশি) দেবার পর সেটা চুলা থেকে নামিয়ে রাখতে হবে।এবার প্রেশার কুকারে বাতাস বেরানোর পর তা গামলায় ঢেলে ফেলতে হবে।

20210901_083253.jpg

20210901_084635-1.jpg

20210901_091725-1.jpg

আর এভাবেই তৈরি হয়ে গেলো আমার আজকের রেসিপি-ওল-কচু দিয়ে হাঁসের মাংস রান্না।হাঁসের মাংস আমার প্রিয় খাবারের মধ্যে একটি,এটি এমনিতেই অনেক সুস্বাদু তবে এর ভিতর ওলকচু দিলে এর স্বাদটা আরো অনেকাংশেই বৃদ্ধি পাই।

পোস্টটি শেষ করার আগে আমি আরেকবার সকলকে ধন্যবাদ দিতে চায় কষ্ট করে আমার লেখাটি পড়ার জন্য।আরো বিশেষভাবে ধন্যবাদ দিতে চায় আমাদের এই কমিউনিটির প্রতিষ্ঠাতা @rme দাদা,মডারেটর ভাইগণ এবং সকল মেম্বরদের যাদের সাপোর্টে আমি আমার কাজের ধারা অব্যাহত রাখতে পেরেছি।তী দয়া করে আমার আজকের রেসিপিটি সম্পর্কে আপনাদের মতামতগুলো নিচের(↓) কমেন্ট বক্সে অবশ্যই জানাবেন।ধন্যবাদ

পোস্ট সম্পাদনকারীঃ@abir10

What3words location:https://what3words.com/stepladder.midweek.abacus

স্বাগতম

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
STEEMKR.COM IS SPONSORED BY
ADVERTISEMENT
Sort Order:  trending

আপনার রান্নাটি অনেক সুন্দর হয়েছে। তবে ওল কচু দিয়ে হাঁসের মাংস রান্না কখনো দেখিনি।আমাদের এদিকে এই ধরনের রান্না হয় না। আমাদের এই এলাকায় হাঁসের মাংসের সাথে আলু দেয়া হয়। বেশিরভাগ সময় কোন কিছু ছাড়াই শুধু ভুনা করা হয়। আপনার খাবারের চেহারা দেখে মনে হচ্ছে খেতে ভালো হয়েছে। ধন্যবাদ আপনাকে।

·

ধন্যবাদ ভাইয়া আপনার মন্তব্যের জন্য।তবে বাসায় ট্রাই করে দেখবেন একদিন। আশা করি নিরাশ হবেন না।

হাসের মাংস আমার খুবই পছন্দের। তবে কচু দিয়ে মাংস রেসিপি টা একটু ভিন্ন। সুন্দর লাগছে দেখতে মাংসটা। সুন্দর রেসিপি।।

·

ধন্যবাদ ভাই...@rupok ভাইদের মতো এই রান্নাটির আপনাদের ওখানেও মনে হয় তেমন প্রচলন নেই।সময় পেলে তাহলে একদিন ট্রাই করে দেখতে পারেন।উপরের স্টেপগুলো ফলো করে খুব সহজেই তৈরি করতে পারবেন রেসিপি টি।

·
·

ধন্যবাদ আপনাকে।

·
·

ধন্যবাদ। চেষ্টা করব।।

কচু এবং হাস দুটি আমার অন্যতম প্রিয় খাবার। আজকে আমার বাসায় কচু রান্না হয়েছে এবং আপনার রেসিপি দেখে খুব ভালো লাগলো

·

ভাইয়া এইটা কিন্তু ওল-কচু।অর্ডিনারি যেই কচুটা আছে ওটা দিয়ে আমাদের এখানে শুধু মাছ আর ডিম রান্না হয়।রেসিপিটি আপনার পছন্দ হবার হবার জন্য আবারো ধন্যবাদ ভাইয়া❤️