আমার বাংলা ব্লগ//যমুনা নদীর ইতিহাস//২০-০৮-২০২১

2개월 전

হ্যালো, বন্ধুরা


আমি @𝕓𝕚𝕡𝕝𝕠𝕓25 বাংলাদেশ থেকে🇧🇩



নিশ্চয়ই আপনারা অনেক ভালো আছেন।আমিও অনেক ভালো আচি।আজকে আমি আমার বাংলা ব্লগ এ আমাদের দেশের একটি বৃহত্তম নদীর ইতিহাস সম্পর্কে আমি আপনাদের মাজে শেয়ার করবো।



🌺 আমাদের এই নদীর নাম হচ্ছে বৃহত্তম যমুনা নদী🌺




🌺 বন্ধুরা চলুন এখন শুরু করি । 🌺



🌺 যমুনা নদীর ইতিহাস🌺


IMG_20210816_103550.jpg

https://w3w.co/catered.dredge.depriving

যমুনা নদী হচ্ছে বাংলাদেশের প্রধান তিনটি নদীর মধ্যে একটি, ব্রহ্মপুত্র নদীর প্রধান শাখা হচ্ছে যমুনা গোয়ালন্দের কাছে পদ্মা নদীর সাথেই মিশে গেছে । এই নদীর আগের নাম ছিল জোনাই। এটি ১৯৮৭ সালের বন্যায় ব্রহ্মপুত্র নতুন খাতে প্রবাহিত হয়ছে । এই নদীর উৎপত্তিস্থল হবে এর দৈর্ঘ্য ২৪০ কিলোমিটার যমুনা নদীর সর্বাধিক প্রস্থ হচ্ছে ১২ হাজার মিটার। যমুনা নদী হচ্ছে বাংলাদেশের দ্বিতীয় অবস্থানে এবং বিশ্বের দীর্ঘতম নদী গুলোর মধ্যে অন্যতম। প্রাচীন ভারত এবং বাংলাদেশের ভূখণ্ড জুড়ে রয়েছে এর অববাহিকা। অঞ্চলে প্রকৃতপক্ষে ব্রহ্মপুত্র নদীর নিম্ন প্রবাহ যমুনা নামে অভিহিত ১৭৮২ থেকে ১৭৮৭ সালের মধ্যে সংঘটিত ভূমিকম্প ও ভয়াবহ বন্যার ফলে তৎকালীন গতিপথ পরিবর্তিত হয়ছে। বর্তমানকালের যমুনা নদীর সৃষ্টি হয় জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার নামক স্থানে। ব্রহ্মপুত্রের গতিপথ পরিবর্তন করে দক্ষিণা বিমুক্তি যমুনা নদী নামে প্রবাহিত হয়। এবং গঙ্গা নদীর সঙ্গে মিলিত হয়েছে বাংলাদেশ। ব্রহ্মপুত্র নদীর দৈর্ঘ্য ২০ মিটার দীর্ঘ ১০ কিলোমিটার ৩ কিলোমিটার থেকে কিলোমিটার পর্যন্ত সেই স্থানেই পাঁচ কিলোমিটারের কম হয় না। এভাবে শুধুমাত্র অনেক কারণে নদীটি বিশ্বের অন্যতম একটি গুরুত্বপূর্ণ নদী তে পরিণত হয়েছে। বর্ষা ঋতুতে যমুনা নদীর প্রবাহ থাকে বিশাল পরিমাণ এবং গড়ে প্রায় ৪০,০০০ হাজার কিউম। একটি পরিমাণ প্রবাহের দ্বারা নদীটি আমাজন কঙ্গো লাবরাটরিয়ানস মিসিসিপি এবং বেদনার পরে সপ্তম বৃহত্তম স্থানে অবস্থান করে নিয়েছে। প্রতি বছরের আগস্ট মাসে প্রায় ব্যবহৃত পণ্য সংগঠিত হয়ে থাকে। যমুনা নদীতে মে মাস থেকে জুলাই মাস পর্যন্ত সংগঠিত বন্যা ব্রহ্মপুত্র-যমুনা এবং মেঘনা নদীতে প্রবাহ বৃদ্ধির কারণে সংগঠিত হয়ে থাকে। গঙ্গার তুলনায় ব্রহ্মপুত্র যমুনা নদীর প্রবাহ গতি সম্পন্ন আয়োজনে প্রবাহের সঙ্গে সঙ্গে যমুনা প্রচুর পরিমাণে পলিসি গ্রহণ করে থাকে। বর্ষা ঋতুতে যমুনা নদী দৈনিক প্রায় ১২ লক্ষ টন পরিবহন করে। এবং বাহাদুরাবাদ এর পরিমাণ যমুনার বার্ষিক পরিবহন ক্ষমতা প্রায় ৭০০৩৫ মিলিয়ন টন। চারটি প্রধান উপনদী গুলো ঝরনা তিস্তা নদী প্রণালী এদের মধ্যে দুধকুমার ধরোনা এবং তিস্তা নদীর তিনটি খরস্রোতা প্রকৃতির। যমুনা নদীর উপর ৪.৮ কিলোমিটার দীর্ঘ একটি সেতু রয়েছে। এই সেতুটি বঙ্গবন্ধু যমুনা বহুমুখী সেতু নামে অভিহিত। এই সেতুর পূর্ব প্রান্ত টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুর উপজেলার এবং পশ্চিম প্রান্ত সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলায় অবস্থিত।



IMG_20210816_103548.jpg

IMG_20210816_103540.jpg

IMG_20210816_103537.jpg

https://w3w.co/catered.dredge.depriving


🌺 যমুনা নদীর উপকারীতা 🌺


এ যমুনা নদীতে অনেক মানুষ এবং জেলের পরিবার মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করে। এবং আমাদের অনেক বর্ষার বন্যার পানি এই নদীটি ধরে রাখে। আমাদের জন্য খুবই উপকারী আমাদের দেশের মধ্যে বৃহত্তম নদীর মধ্যে এটি একটি অন্যতম নদী।


ডিভাইসitel vision1
সময়১১ঃ২০ মিনিট
ফটোগ্রাফারআমি

🌻আশা করছি সবার ভালো লাগবে।ভালো থাকবেন সুস্থ্যথাকবেন।🌻


Cc:-
@rme
@amarbanglablog
@hafizullah
@blacks
@winkles


শুভেচ্ছান্তে,
@biplob25
Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
STEEMKR.COM IS SPONSORED BY
ADVERTISEMENT
Sort Order:  trending

আমি ছোটবেলায় বাবা-মার সাথে ঘুরতে যাওয়ার সময় যমুনা নদী দেখেছিলাম। সেখানে পরিবেশটা আমার এখনও মনে আছে। যমুনা নদীর ইতিহাস জেনে ভালো লাগলো। আর যুমনা নদীর উপকারীতার ফলে আমাদের দেশ এগিয়ে যাচ্ছে!

খুব সুন্দর উপস্থাপনার সাথে ব্যখ্যা করেছেন। ধন্যবাদ আপনাকে অনেক অনেক। যমুনা নদীর ইতিহাস জেনে খুব ভালো লাগছে।

যমুনা নদীর নাম অনেক শুনেছি। কিন্তু কখনো দেখিনি। এবং আমি এর ইতিহাস সম্পর্কেও জানতাম না। ধন্যবাদ আপনাকে এই বিষয়ে পোস্ট করার জন্য।
বি:দ্র: কোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ব‍্যতীত অ‍্যাডমিন মডারেটরেরদের আপনার পোস্টে মেনশন করবেন না। ধন্যবাদ।

যমুনা নদীর ইতিহাস অনেক সুন্দর করে আপনি ব্যাখ্যা করেছেন এ জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ♥

·

আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ আপু...😊