থাই-সেভেন বারোমাসি পেয়ারা ছাদবাগানের টবে চাষাবাদ

2개월 전

আসসালামু আলাইকুম।

ভিটামিন-সি সমৃদ্ধ, সুস্বাদু ও পুষ্টিকর একটি বারোমাসি ফল হলো থাই-সেভেন বারোমাসি পেয়ারা। যার পুষ্টিগুনের কথা লিখে শেষ করা যাবে না,সেই ফল কিভাবে ছাদবাগানের টবে চাষাবাদ বা লালন-পালন করবো সে-সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করতে যাচ্ছি।

সুপ্রিয়
আমার বাংলা ব্লগের কতৃপক্ষ, সদস্য ও সকল স্টীমিয়ান বন্ধুদের প্রতি রইল আমার আন্তরিক প্রীতি,শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

আপনারা সবাই কেমন আছেন? আমি আশা করি সবাই কুশলে আছেন।

আমিও আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি।

বন্ধুরা আমার বাসার উপরে ছাদে ছোটখাটো কয়েেক প্রজাতির উদ্ভিদ নিয়ে একটি বাগান রয়েছে।
এখানে গাছের কলম, গ্রাফটিং সহ বিভিন্ন পদ্ধতিতে গাছের প্রজনন ঘটাই।

যাই হোক ওদিকে না গিয়ে আজকের আলোচনা আরম্ভ করি?

IMG_20210722_135845.jpgLocation

আজ থেকে দেড় বছর পূর্বে ৩০/৪০ সেন্টিমিটার লম্বা মাত্র ১০ টাকা দিয়ে দুটি দেশি পেয়ারার চারা বাজার থেকে কিনে এনে ২৫ লিটার প্লাস্টিক দুটি বাল্টির টবে চারাগুলো প্রতিস্থাপন করি।

IMG_20210722_135658.jpgLocation

টবে চারা প্রতিস্থাপন করা আগে মাটি তৈরি করতে হবে। টবে সাধারন মাটি দিয়ে চারা রোপণ করলে হবে না। টবের জন্য বিশেষ মাটি তৈরি করতে হবে।

IMG_20210722_135646.jpgLocation

টব সংগ্রহ

বাজারে প্লাস্টিকের দোকান থেকে এটি সংগ্রহ করা যাবে বা কিনে নিতে হবে।

২৫/৩০ লিটার কালো রঙের কমদামী বাল্টিগুলোর মুল্য ৬০ থেকে ৮০ টাকা।

তা কিনে এনে বাল্টির তলায় ঠিক মাঝখানে লোহা গরম করে ১ ইঞ্চি ব্যাসের সমান একটি গোল ছিদ্র করতে হবে।

তাহলে এটি একটি ছাদবাগানের জন্য চারা রোপণের উপযোগী টব হয়ে গেল।

IMG_20210722_135707.jpgLocation

টবের মাটি তৈরি

পেয়ারা গাছের জন্য মাটি তৈরি-

সাধারন মাটি বা দো'আশ৫০%
এক বছরের পুরানো গোবর৩০%
অর্গানিক জৈবসার১০%
অর্গানিক এনপিকে সার১০%

অর্গানিক জৈবসার ও এনপিকে সার বলতে বাসায় তৈরি করা হয় নিজেই। এসম্পর্কে পরবর্তীতে লেখা যাবে।

IMG_20210722_135714.jpgLocation

উপরে উল্লেখিত উপাদানগুলো ঐ পরিমান দিয়ে ভালোভাবে মিক্সচার করতে হবে। তাহলে আদর্শ টবের মাটি বা গার্ডেন সয়েল তৈরি হয়ে গেল।

IMG_20210722_135723.jpgLocation

এখন ঐ মাটিগুলো বাল্টিতে বা টবে ঢালবো। তার আগে টবের তলার ছিদ্রতে একটি খোলামকুচি বা ইটের টুকরা এমন ভাবে বসিয়ে দেবো যা পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা থাকে।

IMG_20210722_135858.jpgLocation

তার উপর ইটের খোয়া ও বালির হাফ ইঞ্চি একটি স্তর তৈরি করে তার উপর গার্ডেন সোয়েল দিয়ে টবের মাঝখানে পেয়ারার চারা প্রতিস্থাপন করা হলো।

IMG_20210722_135817.jpgLocation

তারপর একটু পানি দিতে হবে,তা দিলাম।
এই চারা দুটি প্রতিস্থাপন করার মাসখানেক পর দেশি পেয়ারার চারা দুটি যখন সতেজ হয়ে উঠলো।

তখন আমার বাসা থেকে অনতিদূর একটি থাই-৭ বারোমাসি পেয়ারার বাগান আছে। ওখান থেকে কয়েকটি পেয়ারার সায়ন সংগ্রহ করলাম।

IMG_20210722_135923.jpgLocation

একসাথে দুটি দেশি পেয়ারার চারায় ঐ সায়নগুলো দিয়ে কলম করলাম বা গ্রাফটিং করলাম।

একমাস পর কলমগুলো উজ্জীবিত হয়ে উঠল।

তার দুমাস পর নতুন থাই-৭ গ্রাফটিং করা গাছদুটিতে একইসঙ্গে মুকুল আসা শুরু হয়েছিল।

IMG_20210722_135941.jpgLocation

আর তখন থেকে ঐ গাছদুটি অবিরত পেয়ারা ফলন হয়ে চলছে।

যত্ন

থাই-সেভেন বারোমাসি পেয়ারা গাছের যত্ন অল্প একটু

নিলেই চলে।
প্রতি তিন থেকে চারমাস পরপর টবে গাছের গোড়ার চতুর্দিকে এনপিকে সার প্রয়োগ করতে হয়।

প্রতি মাসে একবার কীটনাশক হিসাবে নীমতেল স্প্রে করতে হয়।

গাছে মুকুল বা পেয়ারা ধরা থাকলে প্রতি সপ্তাহে একবার করে বাড়ীতে তৈরি নীম তেল স্প্রে করলে ভালো হয়।

IMG_20210722_140049.jpgLocation

আমার ছাদবাগানটি সম্পূর্ণ ক্যামিকেল মুক্ত একটি আদর্শ ছাদবাগান "ভেন্ডাবাড়ী রুফ গার্ডেন"।যেখানে শুধুমাত্র অর্গানিক( বাড়িতে তৈরি)সার ও কীটনাশক ব্যবহৃত হয়।

যাতে আমার পরিবার ও আত্নীয় স্বজন একদম ফ্রেস ফলমুল খেতে পারে-এটা আমার দৃঢ় সংকল্প।

বন্ধুরা এভাবে থাই-সেভেন পেয়ারা ছাদবাগানের টবে অথবা বেলকোনিতে অথবা বারান্দায় বা বাড়ীর গেটে দুএকটি থাই-সেভেন বারোমাসি পেয়ারার গাছ থাকলে সারা বছর পেয়ারার চাহিদা মেটানো সম্ভম।

আলোকচিত্র সংগ্রহ

ছবি ক্যাপশনস্মার্টফোন ক্যামেরা
ফোনের নামসিম্ফনি
ফোনের মডেলজেড২৫
লোকেশনভেন্ডাবাড়ী রুফ গার্ডেন,লেবু ম্যানসন,ভেন্ডাবাড়ী, রংপুর,বাংলাদেশ
তারিখ২২/০৭/২০২১
সময়সকাল ১০ ঘটিকায়

এতো সময় ধরে সাথে থাকার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ। আজ এ পর্যন্ত সবাই ভালো থাকবেন,সুস্থ্য থাকবেন,সুন্দর থাকবেন।আল্লাহ হাফেজ।।

ধন্যবাদান্তে
@doctorstrips

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
STEEMKR.COM IS SPONSORED BY
ADVERTISEMENT
Sort Order:  trending

যদিও ফটোগ্রাফিগুলো একটু অপরিস্কার হয়েছে, উজ্জ্বল আবহাওয়ার জন্য এই রকম হতে পারে, তথাপিও খুব সুন্দর লিখেছেন এবং উপস্থাপনা ভালো ছিলো। আসলে আমাদের সবার এই রকম চিন্তা করা উচিত পারিবারের সদস্যদের জন্য।

·

ধন্যবাদ ভাই সুন্দর মন্তব্য করার জন্য। আসলে কমদামী ফোন তথাপিও একটু রোদে ছবিগুলো তোলা সেজন্যে একটু খারাপ হয়েছে।
আবারও ধন্যবাদ।ভালো থাকবেন।

পেয়ারা আমি প্রিয় একটি ফল। আমাদের বাড়িতে তিনটা কাজী পেয়ারা গাছ আছে। এবং বতর্মানে শহরঞ্চালে ছাদবাগান জনপ্রিয় হয় উঠছে।

·

ঠিক তাই।ধন্যবাদ । বেশি বেশি পেয়ারা খান।শরীরে পুষ্টির চাহিদা মেটান।ভালো থাকবেন।