# গন্তব্য যখন মায়াবী ঝর্ণার পাদদেশ।<br><b>জাফলং,গোয়াইনঘাট, সিলেট।</b>

지난달

ট্রাভেল ব্লগ


  • ০৯ জুলাই ২০২১
  • শুক্রবার ।

IMG_20210813_181300.jpg

আসসালামু আলাইকুম,
শুভ বিকাল, আশা করি আমার বাংলা ব্লগ পরিবারের প্রত্যেকেই ভালো আছেন । আজকে আমি আপনাদের সাথে আমার একটি আনন্দময় ভ্রমণের অভিজ্ঞতা শেয়ার করবো বলে মনস্থির করেছি, আমি কিছুটা প্রকৃতিপ্রেমী মানুষ হিসেবে অনেক বড় বড় ব্যস্ততাকে বাঁ হাত দেখিয়ে নিতান্তই অজুহাত কে সামনে রেখে প্রকৃতির কাছে ছুটে যাওয়ার চেষ্টা করি যা আমার মনকে সবসময়ই প্রশান্তি দেয়। আমাদের মত যারা চাকুরিজীবী তাদের কাছে শুক্রবার মানে হচ্ছে মুক্তির দিন। যে দিনটাকে ঘিরে থাকে অনেক পরিকল্পনা আর অনেক প্রোগ্রাম। কিন্তু আমার সব কল্পনা আর মহাপরিকল্পনা এক বৃত্তেই সবসময় ঘুরপাক খায়, কোথাও ঘুরতে যাওয়ার সুযোগ খোজা। আস্তে আস্তে দলভারী করি এবং সবাই মিলে গন্তব্য স্থির করি।ঠিক তেমনই একটি গন্তব্য স্থল হলো জাফলং ঝরনা, যেটাকে স্থানীয়রা মায়াবী ঝর্ণা হিসেবেই চেনে। এটি সিলেটের উত্তরে অবস্থিত যা গোয়াইনঘাট উপজেলার অন্তর্গত।
গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেই সকাল আটটায়। আমরা ছিলাম মোট পাঁচজন। আমরা যখন রওয়ানা হই তখন ঝিরঝির করে বৃষ্টি পড়ছিল। একটা কথা বলে রাখা ভালো, সিলেটে বৃষ্টি আসার নির্দিষ্ট কোন সময় নেই, যেকোনো সময় বৃষ্টি চলে আসতে পারে।তাই বাড়তি কিছু সতর্কতা ছিল আমাদের।যাওয়ার পথে কিছু ছবি তুলেছিলাম যার মধ্যে একটি আপনাদের সাথে শেয়ার করছি,

IMG_20210908_161217.jpg

আমরা যখন জৈন্তাপুরের কাছাকাছি আসলাম তখন ভাবলাম মেঘালয় পাহাড়ের সৌন্দর্য উপভোগ করার সুযোগটা কেন মিস করবো, যেই কথা সেই কাজ।গাড়ি থামাতে বলি আর সাথে সাথে চলে যায় পাহাড়ের আরো কাছে।তখন সবার আবেগটা দেখার মতো ছিলো। আমিও নিজের কিছু ছবি তুলে নিলাম। তার মধ্যে একটি আপনাদের সাথে শেয়ার করছি,

GAYqBVGjqKbrqxKuXoFbMXnraEH.jpg

IMG_20210908_160947.jpg

তারপর সেখান থেকে আবারো যাত্রা শুরু করলাম জাফলংয়ের উদ্দেশ্যে। আমরা যখন জাফলং পয়েন্টে পৌছালাম তখন যেনো কারোরেই আর ধৈর্য্য ছিলোনা গাড়িতে বসে থাকার। আমরা রওনা দিলাম পিয়াইন নদীর ঘাটে, কারণ মায়া ঝরনায় যেতে হলে পিয়াইন নদীটি পার হতে হয়। সেজন্য আমরা ঘাটে গিয়ে ছোট্ট একটা ডিঙি নৌকা ভাড়া করি। আমি নদী পথের একটা ছবি শেয়ার করছি।

IMG_20210908_161031.jpg
নদীপথে যাওয়ার সময় হাতের ডানে ভারতের একটি সুন্দর ব্রিজ চোখে পড়ল, এটি যেন প্রকৃতির মাঝে এক টুকরো সেতুবন্ধন। সাথে সাথে ছবি তুলে নিলাম।
যদিও তেমন স্পষ্ট হয়নি কারণ ব্রিজের কাছেই অনেক মেঘ ভেসে বেড়াচ্ছিল তবুও চেষ্টা করেছি স্পষ্ট করে তোলার।
IMG_20210908_161252.jpg

নদীর ওপার থেকে ঝর্নার কাছে যেতে হলে আরো কিছুক্ষণ বালির উপর দিয়ে হাটতে হয়,তাই আমরা হাটা শুরু করলাম। বালির মাঠটা দেখে ফুটবল খেলতে খুব ইচ্ছে করছিলো কিন্তু কাছে কোনো ফুটবল না থাকায় খুব আফসোস হলো তবুও মনের দৃষ্টি যেন সেই ঝরনার দিকেই,তাই গল্প করে করে সামনের দিকে এগোচ্ছিলাম । কিছুক্ষণ হাটার পর যখন ক্লান্ততা ভর করেছিল ঠিক তখনি চোখের সামনে দেখা দিলো মায়াময় সেই মায়াবী ঝরনা।সেই মুহুর্তোটা হয়তো আমি লিখে প্রকাশ করতে পারবোনা, যা ছিল আমার কাছে একটি স্মৃতিময় অনুভূতি। সত্যি বলতে, অনেকের কাছে হয়তো এটি একটি ঝরনা কিন্তু আমার কাছে এটি একটি অনুভূতির নাম যা প্রকৃতি আমাদের উপহার দিয়েছে। সেই মুহূর্তের একটু খানি আপনাদের সাথে শেয়ার করছি।

IMG_20210813_174116.jpg

আমরা সবাই পাথরের গা ঘেঁষে উপরে উঠতে লাগলাম কিন্তু পাথর গুলো অতিরিক্ত পিচ্ছিল থাকার কারণে বেশি উপরে উঠা সম্ভব হয়নি।

IMG_20210813_174738.jpg

IMG_20210813_174717.jpg

ইচ্ছে ছিলো ঝরনার পাশ দিয়ে আরেকটু ভিতরে যাওয়ার কিন্তু ভারতের সীমানা থাকায় সীমান্ত বাহিনী কর্তৃক নিষেধাজ্ঞা জারি ছিলো তাই তীব্র ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও যেতে পারিনি। সামনে কখনো সুযোগ পেলে ওপার বাংলায় যাবো ইনশাল্লাহ।
আমরা অনেকক্ষণ সেখানে অবস্থান করেছিলাম অতঃপর চোখের তৃষ্ণা মিটিয়ে সবাই ভূরিভোজ করে বাসার উদ্দেশ্যে গাড়িতে চেপে বসলাম।
আর এরি মধ্যে দিয়ে শেষ করছি আমার মায়াবী ঝরনা দেখার অভিজ্ঞতা, যা আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম । আবারো নতুন কোনো দিনে নতুন কোন অভিজ্ঞতা নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হবো ইনশাআল্লাহ। সেই পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন এবং সর্বোচ্চ সতর্কতায় পথ চলুন। ধন্যবাদ সবাইকে।

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
STEEMKR.COM IS SPONSORED BY
ADVERTISEMENT
Sort Order:  trending

ঝর্না প্রকৃতির এক অপরূপ সৃষ্টি। শক্ত কঠিন পাহাড় থেকে ঘেসে আসা পানির ফোয়ারা মুগ্ধ করে সবাইকে।যে কেউ মুগ্ধ হয় এই সৌন্দর্যে। ঝর্ণার সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে কতশত কবি সাহিত্যিক যে কয়েক ধরণের সাহিত্য রচনা করেছেন তার অভাব নেই।ঝর্না প্রকৃতির এক অপরুপ দান।আপনার উপস্থাপনাটি সুন্দর ছিলো।ধন্যবাদ ভাইয়া।

·

আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ মন্তব্যটি করার জন্য।

আপনার এই পোস্টটি পড়ে স্মৃতিকাতর হয়ে পড়লাম। মনে পড়ে গেলো বন্ধুদের সাথে সিলেট টুর এর কথা। সিলেট আসলে অনেক সুন্দর একটি জায়গা। শহরের চারপাশ দিয়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে অসংখ্য সুন্দর কিছু দর্শনীয় স্থান। আমরা যখন জাফলং গিয়েছিলাম। তখন ছিল শুষ্ক মৌসুম। যার ফলে জাফলং এর সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারিনি। কিন্তু সারি নদীর কথা আমার এখনো মনে আছে। অসম্ভব সুন্দর এই নদী। একদম ছবির মতো সুন্দর বলতে যা বোঝায় ঠিক তাই। আপনার পোস্টটি আমার খুবই ভালো লেগেছে। এরপর থেকে অবশ্যই what3words লোকেশন কোড ব্যবহার করবেন ।ধন্যবাদ আপনাকে।

·

সুন্দর পরামর্শটি দেওয়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ভাই।

নতুন নতুন মানুষের পরিবেশ এবং সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে এবং নতুন কিছু দেখতে এবং সেইটা আমাদের অবশ্যই ভ্রমণ করা উচিত।

সিলেটের জাফলং ভ্রমণ আপনার শুভ হোক এবং দীর্ঘায়ু কামনা করছি আপনার এই আনন্দঘন মুহূর্ত গুলো কে

সময়ের সুযোগ এবং যদি কখনো মেলে অবশ্যই আমিও এই সুন্দরতম স্থান থেকে ঘুরে দেখতে চাই

·

ইনশাআল্লাহ আপনার স্বপ্নগুলোও পূরণ হবে ।ধন্যবাদ আপনাকে।

·
·

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ শুভকামনা এবং আমার স্বপ্ন পূরণে বাস্তব সঙ্গী হওয়ার জন্য

ঝর্না দেখতে বা ঝর্ণার চুড়ায় উঠতে কার না ভালো লাগে বলেন, আমার তো সেই মজা লাগে, এই তো কিছুদিন আগে বান্দরবান গিয়েছিলাম সেখানে গিয়ে ঝর্না দেখে আমি আর তর সইতে পারি নাই ঝর্না ধার বেয়ে একদম ঝর্নার চুড়ায় উঠে গিয়েছিলাম,আপনার পোষ্ট দেখে সেটা মনে পরে গেলো,আপনার উপস্থাপনা খুবই সুন্দর হয়েছে, আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্যে আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ

·

সুন্দর মন্তব্যের জন্য আপনাকেও ধন্যবাদ।

যখন এক জায়গায় থেকে অন্য জায়গায় যাওয়ার কোন পরিকল্পনা তৈরি হয়,তখনই মনটা একটু একটু করে প্রটফুল্লো হতে থাকে।গন্তব্যের জয়টগার প্রতি মনে মনে যেন ভালোবাসা জন্মে যায়।আপনি অনেক সুন্দর ভালো পোস্টটি উপস্থাপন করেছেন।গঠন মূলক বক্তব্যে আপনি আপনার পোস্টটি তুলে ধরেছেন।

মুহুর্তোটা হয়তো আমি লিখে প্রকাশ করতে পারবোনা, যা ছিল আমার কাছে একটি স্মৃতিময় অনুভূতি।

আপনি না লিখলেও আমি ঠিকই অনুভব করতে পারছি যে আপনার সময়টা কতটুকু সুন্দর এবং স্মৃতিচারণ মূলক ছিল।

আপনার জন্য শুভকামনা রইলো।অনেক সুন্দর হয়েছে।

·

আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ ভাই।

সিলেটে এইজায়গা গুলো ঘুরে দেখার খুব শখ আমার। ছোটবেলায় একবার গিয়েছিলাম সিলেটে, কিন্তু তেমন মনে নেই ভ্রমণ টা। খুবই সুন্দর হয়েছে আপনার ছবি গুলো ভাই। শুবেচ্ছা রইল আপনার জন্য।

·

ধন্যবাদ আপনাকে ভাই।