মজার খাবার 'কচুরি' তৈরির রেসিপি|| ১০% 'লাজুক-খ্যাক' এর জন্য 🦊

3개월 전

💥 শুভেচ্ছা সবাইকে 💥


আশা করছি @amarbanglablog এর সকল মেম্বাররা ভালই আছেন। আমিও আপনাদের দোয়া ও আশীর্বাদে ভালো আছি। সবাইকে আমার সালাম, আদাব এবং নমস্কার জানিয়ে আজকের পোস্টটি লেখা শুরু করছি। শিরোনাম দেখেই বুঝতে পারছেন আমি আজকে একটি মজার খাবার তৈরি করার পদ্ধতি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো। আশা করি কচুরি সম্পর্কে সবার ভালো আইডিয়া আছে। তাহলে চলুন শুরু করা যাক পুরো রেসিপিটিঃ


PicsArt_10-29-12.15.01.jpg

মূল খাবার কচুরি এর ফাইনাল লুক


প্রয়োজনীয় উপকরণঃ

  • চাল ভাজা(প্রয়োজন মত)
  • নারকেল
  • মিঠাই
  • লবন
IMG-20211016-WA0002.jpgIMG-20211016-WA0003.jpgIMG-20211016-WA0001.jpg

প্রথম ধাপঃ

প্রথম ভালো করে চাল গুলোকে ভালো করে মুছে নিতে হবে, হালকা লবন দিয়ে ভালো করে মাখিয়ে নিতে হবে, কিছু সময় অপেক্ষা করতে হবে, এবার একটি কড়াই নিয়ে তাতে অল্প আচে চাল গুলো ভেজে নিতে হবে, ভাজা হয়ে গেলে চাল গুলো ঠান্ডা হওয়ার জন্য ১৫ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে, এবার ব্লেন্ডার সাহায্য চাল গুলো ভালো করে গুঁড়া করে নিতে হবে।

IMG-20211016-WA0004.jpgIMG-20211016-WA0005.jpgIMG-20211016-WA0006.jpg

দ্বিতীয় ধাপঃ

নারকেল ভালো করে কোরায় নিতে হবে,মিঠাই একটু ভেজা হলে ভালো হয় কেনার সময় দেখে কিনতে হবে।এরপর নারকেল র মিঠায় ভালো করে মেখে নিতে হবে. সাথে পরিমান মত লবন দিয়ে দিতে হবে।

IMG-20211016-WA0007.jpgIMG-20211016-WA0003.jpg
IMG-20211016-WA0006.jpgIMG-20211016-WA0008.jpg

তৃতীয় ধাপঃ

নারকেল র মিঠায় মিশ্রণ সাথে চালে গুড়া মিশিয়ে নিতে হবে।চাল ব্লন্ডর করার পর অবশ্যই চালনি দিয়ে চেলে নিতে হবে।এবার নারকেল মিঠায় র চালের গুঁড়া লবন একত্রে ভালো করে মেখে নিতে হবে। মাখা হয়ে গেলে তা হাতের সাহায্যে মুট মুট করে বা গোল গোল করে।

IMG-20211016-WA0008.jpgIMG-20211016-WA0009.jpg
IMG-20211016-WA0014.jpgIMG-20211016-WA0011.jpg

এটাই ছিল কচুরি তৈরি করার সম্পূর্ণ পদ্ধতি। আশা করছি কেউ যদি বাসায় এই মজার খাবারটি তৈরী করতে চান তাহলে আমার রেসিপিটি দেখে খুব সহজেই তৈরি করতে পারবেন। সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ আমার রেসিপিটি পড়া ও দেখার জন্য। আজ এ পর্যন্তই দেখা হবে আবার পরবর্তী কোন পোস্টে। সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন। সকলের মঙ্গল কামনা করে বিদায় নিচ্ছি।

ধন্যবাদ সবাইকে 🙏💛

3YjRMKgsieLsXiWgm2BURfogkWe5CerTXVyUc6H4gicdRPnVdoWv2CUVEXwUMD7eh1P4gL2YvSiTZnnWYBWmatfjN7sN7YcRtFfVqpjdBe...ku728t11TfTzb5BchwkNfbe1tRMV2c3MxTccYTE7PFQWtTgkcZNR8q5XkDXDWic5FXtbvNMcATRx2AdPHM1iHAzRZv5rv68sE7Ty6NGbVd6mdEkqrZzs7xUp78.png

99pyU5Ga1kwqSXWA2evTexn6YzPHotJF8R85JZsErvtTWXyxR4bQ97TgsjfPddCHbyy6iroAYT1WhJk8nVxkTFwVkrmPpBdnXBckSWbM3qXCjSkvQS2qNLBDSHbUnCiwHx.png

5zGozCj1raAPxR2gxtAcC4PqrgwoJ7g4fhsaZBQiGiZqD87wn9BXBXJFW8wurjm2tHP6GnSZsViXpLxMmvtUPsU42uYFAjt7FrEGWoTnd7...AzstAaubGFM2fYA5AYF19txzkeiujm7sqwkLserWoBQtMPpKBbofpqvzfKmG3z1aNTr6jdEghcxA9m4zYDiBF1kUiVYWDhkSSWVi4MttieQwaDQnEDLnk5kvs7.gif

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
STEEMKR.COM IS SPONSORED BY
ADVERTISEMENT
Sort Order:  trending

আমি আগে কখনো কচুরি বানানো দেখিনি কিন্তু আপনার পোষ্টটি পড়ে আমি বাসায় বানানোর চেষ্টা করব বলে মনস্থির করেছি।

·

নতুন একটি খাবারের সাথে আপনাকে পরিচিত করতে পেরে ভাল লাগছে। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য

·
·

জি ভাই ঠিক বলেছেন আমার কাছে এটা নতুন রেসিপি।

আপনার কচুরি টি খুব সুন্দর হয়েছে। আমার আম্মু মাঝেমধ্যে বাসায় কচুরি তৈরি করে। শুভকামনা রইল।

·

ধন্যবাদ আপনাকে সুন্দর মন্তব্যের জন্য

সত্যি বলতে কচুরি রেসিপি আমি আগে কখনও টেস্ট করি নি তবে দেখে তো টেষ্টি মনে হচ্ছে। আপনার পোস্ট দেখে অজানা একটি রেসিপি সম্পর্কে জানতে পারলাম। রেসিপিটি শেয়ার করার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া

·

আপনার জন্য খাবারটি একেবারে নতুন। বাসায় তৈরি করে খেয়ে দেখবেন আশা করি মজা পাবেন। ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য

মজার খাবার 'কচুরি' তৈরির রেসিপি অনেক সুন্দর হয়েছে ভাই দেখে তো খেতে ইচ্ছা করছে এভাবে কখনো খাইনি তবে এবার বাসায় তৈরি করবো ধন্যবাদ আপনাকে ভাইয়া আপনার জন্য শুভকামনা রইলো

·

অবশ্যই ট্রাই করে দেখবেন বাসায় আশা করি ভালো লাগবে। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য

এটা আমার কাছে একদম নতুন লাগল।প্রথমে ভেবেছিলাম এটা বোধহয় নারু বানাইবেন।কিন্তু ধাপ গুল পরে দেখলাম না।সুন্দর ছিল রেসিপিটি। অনেক সুন্দর ভাবে ধাপ গুলো উপস্থাপন করেছেন।

·

ধন্যবাদ আপনার সুন্দর মন্তব্যের জন্য

সত্যি ভাইয়া আজ আমি প্রথম কচুরি তৈরি করা দেখলাম। আর দেখে খুব ভালো লাগলো। আর যদি সময় পাই তবে অবশ্যই বানানোর চেষ্টা করব। আর যাই হোক সব মিলিয়ে আপনার পোস্টটি অনেক সুন্দর ছিল ধন্যবাদ আপনাকে।

·

নতুন একটি খাবারের সাথে আপনাকে পরিচিত করতে পেরে ভাল লাগছে। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য

কচুরি এটা প্রথম দেখলাম। তবে এই রকম আমাদের এলাকায় তৈরি হয় ওটাকে আমরা ছাতু বলি। কিন্তু আপনারা দেখছি কচুরি বলছেন। যাইহোক যেখানে যেমন। কচুরি এর রেসিপি টা ভালো ছিল। এবং আপনার উপস্থাপনা টাও খুব সুন্দর হয়েছে।

·

ভাই ছাতু যেটা সেটা হচ্ছে যখন গুড়া অবস্থায় থাকে তখন সেটাকে ছাতু বলে আর যখন এভাবে বানানো হয় তখন সেটাকে কচুরি বলে। ভিন্ন রকম হতে পারে আমি একেবারেই শিওর না। আপনার মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ

আমি প্রথমে ছবি দেখে এটিকে নারিকেলের নাড়ু ভেবেছিলাম ।কিন্তু পরে পোস্ট পড়ে জানতে পারলাম যে একটি কচুরি। আমি কচুরি কখনো খাইনি। দেখে ভালই লাগছে। খেতে মনে হয় মজাদার হয়েছিল। শুভকামনা আপনার জন্য।

·

রেসিপি দেখে বাসায় ট্রাই করতে পারেন এটা খুবই মজার একটি খাবার। আপনার মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ

😑প্রথম দেখাতেই যে কেউ এটাকে নাড়ু ভাববে। যাই হোক পড়ে বুঝতে পারলাম এটা কচুরি
অনেক সুন্দর হয়ছে

·

ধন্যবাদ আপু

কচুরি তৈরির রেসিপি প্রথমে দেখে মনে হল কচুরি কি কিন্তু এইটা আমি খেয়েছি কিন্তু নামটা ভিন্ন লাগছে। আপনি খুব সুন্দর ভাবে জিনিসটি উপস্থাপন করেছেন। রান্না করেছেন খুবই ভাল লাগল। প্রতিটি ধাপ খুব সুন্দর ভাবে আমাদের মাঝে পরিবেশন করেছেন খুব দক্ষতার সাথে। আপনার জন্য শুভকামনা রইল

·

একেক জায়গায় একেক নাম বলতে পারে। এলাকা ভেদে খাবারের নাম অনেক সময় বিভিন্ন রকমের হয়।ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য

·

একেক জায়গায় একেক নাম বলতে পারে। এলাকা ভেদে খাবারের নাম অনেক সময় বিভিন্ন রকমের হয়।ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য

এইটা অনেক স্বাদের আমি খাইছি। গ্রামের দিকে এইটি অনেক বানায়। শীতকালে বেশি বানায় এইসব।

·

আপনার মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ আপু

ভাইয়া আপনার কচুরি রেসিপিটি খুব সুন্দর হয়েছে। কচুরি আমার খুব পছন্দের একটি রেসিপি। আমার কাছে কচুরি খেতে খুব ভালোই লাগে। আপনি সুন্দর করে ধাপে ধাপে উপস্থাপন করেছেন। এত সুন্দর একটি রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

·

রেসিপিটি আপনার ভালো লেগেছে জেনে ভালো লাগলো। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য

কচুরি তৈরির অনেক সুন্দর একটি রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করেছেন ভাই। এই কচুরি আমার খুবই ভালো লাগে। বিশেষ করে কয়েক দিন রেখে দেওয়া পরে যখন শক্ত হয়ে যায় তখন খেতে বেশ মজা লাগে। কচুরি তৈরির প্রতিটা ধাপ আমাদের মাঝে অনেক সুন্দর ভাবে তুলে ধরেছেন। অনেক লোভনীয় একটি রেসিপি এটা।

·

অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাই আপনার মূল্যবান মন্তব্যের জন্য। আমি যদিও গরম গরম খেতে ভালবাসি। শক্ত হয়ে যাওয়ার পর খেতে ভালো লাগে না তেমন।

অনেক ভালো লাগলো ভাই আপনার এই কচুরি রেসিপি টা দেখেন। কচুরি খেতে আমার খুবই ভালো লাগে। আজকে আপনার তৈরি কচুরি টা দেখে ভাবতেছি আবার আমাদের বাড়িতে তৈরি করব। অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া এত সুন্দর একটা রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য

·

আমার রেসিপিটি দেখা এবং পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ আপু। আশা করি আপনিও খুব সুস্বাদু করে আপনার বাসায় তৈরি করতে পারবেন।

আমার খুব খুব প্রিয় চাউল ভাজা দিয়ে কচুরি রেসিপি।
এই রেসিপি দেখে আমার ছোট বেলার কথা মনে পড়ে গেল ভাইয়া।
অনেক ছোট থাকতে খেয়েছিলাম এই রেসিপি।

অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া টেস্টি রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।
শুভকামনা রইলো ভাইয়া।

·

খাবারটি আপনার প্রিয় এটা জেনে ভালো লাগলো। আমি ছোটবেলাও খেতাম এখনও খাই। মাঝে মাঝেই বানানো হয় বাসায়। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য

ভাইয়া আমার এই খাবারটি অনেক বেশি ভালো লাগে আগে প্রায় সময় আম্মু এটি বানাত তখন অনেক খেতাম খুব ভালো লাগতো। আপনার রেসিপিটি আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে ভাইয়া অনেক শুভেচ্ছা রইল আপনার জন্য।

·

রেসিপিটি আপনার কাছে ভাল লেগেছে জেনে ভাল লাগলো। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য আপু

এটা কচুরি রেসিপি আমি কচুরি রেসিপি আজকে প্রথম শুনলাম ও দেখলাম।আমার কাছে একদম নতুন, আমি প্রথমে ভেবেছিলাম এটা নারিকেলের নাড়ু হবে হয়তো। কিন্তু আপনার এই কচুরির রেসিপি আমি আগে কখনো দেখিনি এবং খাইনি। আপনার সুন্দর ভাবে উপস্থাপন দেখে আজকে এটা আমি শিখতে পেরেছি। পরবর্তীতে আমি এটার তৈরি করে দেখব কিরকম মজা লাগে। আপনার জন্যশুভকামনা রইল।

·

একটা নতুন জিনিস এর সাথে আপনাকে পরিচিত করতে পেরেছি জেনে ভালো লাগলো। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য

দাদা কচুরি তৈরি রেসিপি টা খুবই সুন্দর ভাবে আমাদের মাঝে উপস্থাপন করেছেন, এটা আমাদের গ্রামের শীতকালে প্রায় বাড়িতে বানানো হয়, এটি খেতে খুবই ভালো লাগে। আপনার রেসিপি টা দেখে আমি নিজে চেষ্টা করে বানাতে পারবো বলে আশাবাদী। শুভকামনা রইল দাদা আপনার জন্য।

·

আমাদের বাসায় মাঝে মাঝে তৈরি করা হয়ে থাকে এই খাবারটি। আমার নিজের ও খুব প্রিয় এটি। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য

আজকেই প্রথম নাম শুনলাম কাচুরি। এর আগে কখনোই কাসুরি নাম শুনিনি। দেখতে অনেকটাই নারুর মতোই। খুবই সুন্দর হয়েছে দেখে তো জিভে জল চলে আসলো। এমন সুন্দর একটি রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য আপনাকে অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

·

আপনার ভালো লেগেছে জেনে আমারো ভালো লাগছে। ধন্যবাদ সুন্দর মন্তব্যের জন্য

আগে বান্ধবীর বাসায় যখন পুজো হত তখন আমি বলতাম এই কচুরি গুলো রাখতে। আমি তখন জানতাম না যে এটার নাম কচুরি। আমি জাস্ট বলতাম আমার জন্য যেন ওই নাড়ুর মতো ওইগুলা যেন রাখে। আমার কাছে খুবই বেশি মজা লাগে এর স্বাদ। ধন্যবাদ আপনি আমার খুব পছন্দের একটি রেসিপি আজকে দিলেন আর আমি নামটাও জানতে পারলাম।

·

নাড়ু আর কচুরি দেখতে এক রকম হলেও দুইটা ভিন্ন ভিন্ন। নাড়ু সাধারণত নারকেলের হয়ে থাকে আর কচুরি টা চালের গুড়া দিয়ে হয়। আপনার মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ আপু

ভাই আগে থেকে বলে রাখবেন না, আপনি এইগুলো তৈরী করতে জানেন, তাহলে গরম গরম খেতে চলে আসতাম, হি হি হি

খুব সুন্দর হয়েছে, দেখে তো লোভ সামলাতে পারছি না। উপস্থাপনাও ভালো ছিলো। ধন্যবাদ

·

ভাই বাসায় আমি আর বোন মিলে বানালাম। এইসব মাঝে মাঝেই বানানো হয় বাসায়। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য। আপনার জন্য আমার বাসার দরজা সবসময় খোলা

আমাদের এলাকায় এটিকে আমরা ভুদো নামেই ডাকি।তবে আজ এটির নতুন নাম জানলাম।তাছাড়া এটি এখন প্রায় বিলুপ্তির পথে।খুবই সুন্দর হয়েছে আপনার রেসিপিটি।ধন্যবাদ দাদা।