নিজেকে প্রস্তুত করো । বদলে যাবে সব।

14일 전

হ্যালো বন্ধুরা। কেমন আছেন সবাই? প্রথমেই জানাই সবাইকে শুভ সন্ধ্যা। আজ বিকেলে আমি ঘুমিয়ে পড়েছিলাম। এই সময়ে কোনদিনও আমি ঘুমাই না। কিন্তু আজকে কেন জানি হঠাৎ ক্লান্ত লাগছিল । কিছুই ভালো লাগছিলো না। শুয়ে চোখ বন্ধ করে থাকতেই বেশী ভাল অনুভব করছিলাম। চোখ বন্ধ করে শুয়ে থাকতে থাকতেই কখন যেন ঘুমিয়ে পড়েছিলাম। ঘুম থেকে উঠেই চিন্তা করলাম আজকে পোস্ট লেখা হয়নি। তাই ঘুম থেকে উঠেই তাড়াহুড়ো করে চলে এলাম আপনাদের সাথে আমার চিন্তা ভাবনা শেয়ার করে নেওয়ার জন্য। আমরা তো একটা ফ্যামিলি। আর এই ফ্যামিলির সদস্যদের জন্যই আমার আজকের লেখনি। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

man-2915187_1280.webp
image source & credit: copyright & royalty free PIXABAY

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা জীবনের একটা পর্যায়ে গিয়ে নিজেকে খুব অসহায় মনে করে। সব সময় হতাশার মধ্যে দিন যাপন করে। এরকম সময় খুবই কষ্টের এবং খুবই কঠিন হয়ে থাকে। আপনার জীবনে যখন এরকম সময় আসবে তখন পৃথিবীটাকেই একটা জেলখানা মনে হবে। এমন একটা বাজে সময়ে আপনি সবসময়ই চিন্তা করেন কেউ একজন এসে আপনার গুরুত্ব দেবে, আপনার সাথে কথা বলবে, আপনার সাথে সময় কাটাবে, আপনার সুখ দুঃখ গুলো শোনার চেষ্টা করবে, আপনার কষ্ট গুলোকে ভাগ করে নিবে। কিন্তু আপনার কল্পনাগুলো কে বারবার মিথ্যে প্রমাণ করে দেবে সবাই। কেউ আপনার গুরুত্ব দেবে না। কেউ আপনার সাথে একটিবারের জন্যও কথা বলতে আসবে না। কারণ আপনি আজকে মূল্যহীন। আসলেও কি তাই ? আপনি অন্য সবার কাছে ততক্ষণ মূল্যহীন যতক্ষণ না নিজের মূল্য বাড়ানোর জন্য কিছু একটা করছেন।


আপনি যতদিন অন্যের উপর আশা করে বসে থাকবেন ততদিন আপনার নিজের মূল্য কমতেই থাকবে। বাড়বে না কখনোই। আপনি একবার কল্পনা করুন। আপনার জীবনটা কিসের জন্য? আপনি কি শুধুমাত্র অন্যের অ্যাটেনশন পেয়ে বেঁচে থাকতে চান নাকি আপনার নিজস্ব একটা সত্তা আছে। আপনার নিজের অস্তিত্বকে প্রকাশ করতে হবে। কেউ এসে আপনাকে সাহায্য করবো না। আপনি বিপদের সময় কাউকে পাশে চাইলেও ইচ্ছামত পাশে পাবেন না। আপনাকে শুধু মনে রাখতে হবে আপনি যেদিন ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন, সফলতার আলো দেখতে পারবেন সেদিন অন্যরা আপনার সাথে সময় কাটাতে চাইবে। তার আগে অন্যেদের অ্যাটেনশন পাওয়ার আশা না করে নিজেই কিছু একটা করতে হবে।

man-1853545_1280.webp
image source & credit: copyright & royalty free PIXABAY


আপনি নিজেকে যত উন্নতি করতে পারবেন অন্যের কাছে আপনার ভ্যালু ততোই বাড়বে। আপনার বিপদের সময় লক্ষ্য করবেন আপনার অনেক কাছের বন্ধু আপনার থেকে দূরে চলে গেছে। তারা আপনাকে সস্তা এক টুকরো পাথর ভাবে। সস্তায় এক টুকরো পাথর কে কেউ পকেটে ঢুকিয়ে রাখে না। সবাই ছুঁড়ে ফেলে দেয়। আপনি যদি নিজেকে ওই সস্তা পাথরের মত বানিয়ে ফেলেন তাহলে অন্যদের দোষ দিয়ে কি লাভ। এটাই তো পৃথিবীর নিয়ম। সবাই দামি জিনিসটাকেই তুলে নেয়। আপনার নিজেকে পরিবর্তন করতে হবে। দামি ডায়মন্ড বানাতে হবে আপনার নিজেকে। তাহলে সবাই ছুড়ে ফেলা তো দূরের কথা সযত্নে আগলে রাখার চেষ্টা করবে।

এই পৃথিবীতে ৭০০ কোটির বেশি মানুষ বাস করে। সেখানে একটা সময় যখন আপনি এতটাই একা অনুভব করবেন যে মনে হবে আপনি হাজারো কোটি মাইল বিস্তৃত জঙ্গলের মাঝখানে একাকী দাঁড়িয়ে আছেন। আপনি যখন ভালো সময় কাটিয়েছেন, আপনার জীবনে যখন কোন ব্যর্থতা ছিল না সেই সময়ে অনেক মানুষ ছিল যাঁরা আপনার সাথে অনেক কমিটমেন্ট করেছে। যেকোনো পরিস্থিতিতে আপনার সাথে থাকবে বলে আশ্বস্ত করেছে। কিন্তু আপনার জীবনের মহা বিপদের সময় আপনাকে একাই লড়তে হবে। আপনি অসহায় হয়ে যাবেন। কাউকেই পাশে পাবেন না। এই সময়টাতেই আপনাকে প্রচুর পরিশ্রম করতে হবে। জীবনের লক্ষ্য নির্ধারণ করতে হবে।

autumn-4545637_1280.jpg
image source & credit: copyright & royalty free PIXABAY

আপনি সঠিক ভাবে পরিশ্রম করে যেতে পারলে আপনি সফলতা একসময় ঠিকই পেয়ে যাবেন। কিন্তু আপনার জীবনের অতীতে রেখে আসা কিছু ক্ষতবিক্ষত স্মৃতি বার বার মনে হতে থাকবে। এমন একটি সময়ে আপনি খুব আবেগী হয়ে যাবেন। খুব কষ্ট লাগবে অতীত মনে পড়ে। আবার মুখের এক কোনায় হাসিও ফুটতে দেখা যাবে। সফলতা এখন আপনার পকেট এ। পৃথিবীটাই মনে হবে এখন আপনার নিজের। সফলতা আসার পর আপনি আপনার অতীতে ফেলে আসা অনেক কিছুই ভাবতে থাকবেন। আপনি ভাববেন কত মানুষ আপনার সাথে বেঈমানি করেছে। বিপদের সময় কাউকে পাশে পাননি। সবাই স্বার্থপর এর মতো দূরে সরে গিয়েছিল।

এসব কল্পনা করতে করতে হঠাৎ খেয়াল করবেন আপনার ফোনে কেউ একজন কল করেছে। কলটা রিসিভ করতেই ওপাশ থেকে কয়েকজনের কথা ভেসে আসছে। তারা সবাই আপনার বন্ধু। আপনাকে ছাড়া তাদের চলেই না। এজন্যই তো আপনার জন্য তারা অপেক্ষা করছে।আহ্ জীবন,,, কতইনা বিচিত্র। ভাল থাকবেন সবাই। খোদা হাফেজ।



JOIN WITH US ON DISCORD SERVER

banner-abb4.png

Follow @amarbanglablog for last updates


Support @heroism Initiative by Delegating your Steem Power

250 SP500 SP1000 SP2000 SP5000 SP

Heroism_3rd.png

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
STEEMKR.COM IS SPONSORED BY
ADVERTISEMENT
Sort Order:  trending

আসসালামু আলাইকুম ভাইয়া শুরুতেই সালাম নিবেন, আশা করি ভাল আছেন। আপনার পোস্টগুলো আমার পড়তেই শুধু ইচ্ছে করে কেন ইচ্ছে করে ইচ্ছে করার কারণ হচ্ছে আপনার পোস্টগুলোতে শিক্ষণীয় অনেক বিষয় থাকে। আর আজকে আপনি যে এই পোস্টটি আমাদের উপহার স্বরূপ দিয়েছেন তাতে একটা ব্যর্থ মানুষ সফল হওয়া পর্যন্ত যা কিছু হয় আপনি তুলে ধরেছেন। হ্যাঁ ভাইয়া আপনি ঠিকই বলেছেন আমরা যখন বেকার থাকি তখন আমাদেরকে পরিবার থেকে শুরু করে বন্ধু-বান্ধব আত্মীয়-স্বজন পাড়া-প্রতিবেশী সবাই খারাপ মনে করে, এমন কি যখন যা ইচ্ছা তাই বলে। পৃথিবীতে এমন একটা জায়গা যেখানে অর্থের কাছে সবাই অসহায়। আমার বাস্তব জীবনের ছোট্ট একটা কথা বলি ভাইয়া। আমি একদিন আমার মাকে বললাম তোমাকে যদি টাকাপয়সা না দেই তুমি কি দোয়া করবা, তখন মা আমাকে উত্তর দিল পেটে যদি বাত না থাকে দোয়া আসবে কি করে। মায়ের চাইতে পৃথিবীতে আপন আর কেউ নয়। সে মা যদি এই কথা বলে তাহলে বন্ধু-বান্ধব সেখানে তো কিছুই না। আমি জীবনে অনেক বন্ধু-বান্ধবের সাথে চলেছি অনেক দুঃখ কষ্টের সম্মুখীন হয়েছি এ জীবনে। বিপদের সময় কোন বন্ধু থেকে চার পয়সার উপকার আমি পাইনি। হ্যাঁ আবার পাইনি বললেও ভুল হবে যাদের থেকে পেয়েছি তাদের জন্য আমি কিছুই করতে পারেনি। এটা আমার বড় ব্যর্থতা, হ্যাঁ ভাইয়া আপনি ঠিকই বলেছেন আমাদেরকে জীবনে সফল হতে হবে এবং কি একসময় বন্ধুবান্ধব আমাদেরকে খুঁজবে। এবং আমাদের ভাবনা গুলো আমাদের আবেগপ্রবণ করে তুলবে। ফেলে আসা স্মৃতিগুলো বার বার মনে পড়বে। মানুষের খারাপ ব্যবহারগুলো যে কষ্টের দাগ হৃদয়ে গেঁথে থাকে সারা জীবন। হ্যাঁ ঠিকই বলেছেন আমিও আজকে মোটামুটি সফল। কিন্তু মুখে মুচকি হাঁসি আসে আমার অতীত গুলো মনে পড়লে। একদিন অবশ্যই আপনাদের সাথে জীবনের অধ্যায়গুলো শেয়ার করব। যেহেতু আমি আমার বাংলা ব্লগে এসেছি আপনাদের মাঝে। আপনাদের থেকে অনেক কিছু শিখছি জানছি। যাইহোক ভাইয়া আমাদের সাথে এত সুন্দর একটা পোস্ট শেয়ার করার জন্য আপনার প্রতি ভালোবাসা অবিরাম।

·

আপনার মন্তব্য তুলে ধরার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। আপনি যে বিষয়গুলো সম্পর্কে বর্ণনা করলেন সবগুলা ঠিক আছে। আমিও একমত।



কি অসাধারণ লেখা ভাইয়া
পড়ে হলাম মুগ্ধ
নিজের ভেলু বাড়াতে গেলে
করতে হবে যুদ্ধ

নিজের সাথে যুদ্ধ হবে
নিজের কথা ভেবে
সফলতার যাত্রা পথ
কেউ না এনে দেবে।

দুশ্চিন্তা দূর করে সব
করতে হবে কাজ
এই সমাজে তবেই তুমি
করতে পারবে রাজ।
♥♥



·

অসাধারণ হয়েছে আপু। আপনার কবিতা প্রশংসা করে শেষ করা যাবে না।

·
·

শুভ কামনা। ভাল থাকবেন সব সময়♥♥

ভাইয়া আপনার পুরোটা গল্প পরে বুঝতে পারলাম যে সবার আগে সবার মাঝে নিজেকে গড়ে তুলা উচিত , এমন ভাবে তৈরী করা উচিত যেন কখনোই কোনো দিকে থেমে থাকতে না হয় , কারণ দিন শেষে মূল্যহীন মানুষকে কেউ দাম দেবেনা আর সেটাই স্বাভাবিক , তাই নিজেকে যোগ্য বলে সবার কাছে প্রমান করা উচিত। অনেক সুন্দর ভাবে কথা গুলো গুছিয়ে লিখেছেন ভাইয়া। অনেক ধন্যবাদ এই পরিবারের চিন্তা করে এতো সুন্দর একটি জ্ঞান মূলক পোস্ট করার জন্যে ।

·

এটাই চরম সত্য। মূল্যহীন মানুষকে কেউ দাম দেয় না। কিন্তু যখন সফলতা হাতের মুঠোয় চলে আসে তখন সবাই সেধে সেধে এটেনশন দিতে চায়।

আপনার আজকের লিখাটি পড়ে খুব ভালো লাগলো ভাইয়া। আসলেই আপনি একটি কথা ঠিক বলেছেন অন্যের অ্যাটেনশন নিয়ে বেশিদিন বেঁচে থাকা যায় না। অথবা সফলতা অর্জন করা যায় না। নিজেকেই নিজের জন্য করতে হয় আর এটাও ঠিক বলেছেন যে অনেক অতীত মনে পরলে খারাপ লাগে। তবে হ্যাঁ বর্তমানকে নিয়ে আমাদের চলতে হবে এবং বর্তমানে কি করে, ভবিষ্যতে কি করে আমরা সুন্দরভাবে জীবন-যাপন করতে পারব তার জন্য আমাদের অতীত থেকেই সফলতার জন্য কাজ করে যেতে হবে।

·

একদম ঠিক। ভবিষ্যতে সফল হলে তখনিনা অতীতকে নিয়ে ভাবার সময় পাবো।

আপনি অন্য সবার কাছে ততক্ষণ মূল্যহীন যতক্ষণ না নিজের মূল্য বাড়ানোর জন্য কিছু একটা করছেন।

ভাইয়া আপনার লেখাগুলো পড়ে অনেক ভালো লাগলো। আমাদের এই জীবন বড়ই অদ্ভুত। সময়ের সাথে সাথে কাছের মানুষগুলো অনেকটা বদলে যায়। নিজের মূল্য না থাকলে কাছের মানুষগুলো পাথরের মতো ছুড়ে ফেলে দেয়। কঠোর পরিশ্রম আর ইচ্ছা শক্তির মাধ্যমে নিজের অবস্থানকে শক্ত করতে হবে। তাহলেই হয়তো কাছের মানুষগুলো আপন করে নিবে। নিয়তি বড়ই কঠিন দুঃসময়ে সেই কাছের মানুষগুলো দূরে সরে যায়। সুসময়ের বন্ধু সকলেই হতে চায়। পৃথিবীতে সবাই স্বার্থপর। নিজের স্বার্থের কথা চিন্তা করে বন্ধুত্ব গড়ে তুলে। তাই আমাদের অন্যের জন্য নয় নিজের জন্যই নিজের সত্তাকে ধরে রাখতে নিজের অবস্থানকে শক্ত করতে হবে। লোকদেখানো সফলতা আর নিজের ব্যক্তিত্ব গড়ে তোলা এর মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে। তাই আমার মনে হয় অন্যের জন্য নয় নিজের জন্য বাঁচা উচিত। তাই অন্যের কাছে নিজের মূল্য তৈরি করতে হলে অবশ্যই নিজের মূল্য বাড়াতে হবে। ধন্যবাদ ভাইয়া দারুন একটি বিষয় আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

·

আপনি ঠিক বলেছেন। বাঁচতে হলে নিজের জন্য বাঁচতে হবে। নিজের মত করে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে।

মাঝে মাঝে আমাদের শরীরকে বিশ্রাম দেওয়া খুবই জরুরি।এখন বর্তমান সময়টা খুবই কঠিন।যেখানে নিজেকে টিকিয়ে রাখতে হলে নিজেকেই গভীর আগ্রহ দ্বারা সেইভাবে তৈরি করতে হবে।পরনির্ভরশীল না হয়ে নিজের উপর আত্মবিশ্বাস রেখে এগিয়ে যেতে হবে।তাহলেই আমরা জীবনকে সুন্দরভাবে উপলব্ধি করতে পারবো।এটি ঠিক এখন কাছের মানুষেরাও শুধুমাত্র সুসময়ের ,দুঃসময়ের নয়।আপনার শিক্ষনীয় ভাবনাগুলো পড়ে খুবই ভালো লাগলো দাদা।ধন্যবাদ দাদা।

·

পরনির্ভরশীল জিনিসটা প্রত্যেকটা মানুষের জন্যই অভিশাপ। স্বনির্ভরশীলতা প্রত্যেকের কাছেই অনেক সুখকর।

·
·

👍একদম দাদা।

ভাইয়া,আপনার চিন্তাধারা সত্যিই অসাধারণ। অনেক সুন্দর করে আপনি জীবনের মূল্যবান কিছু কথা উপস্থাপন করেছেন। আসলেই আমরা অন্যের গুরুত্ব পাওয়ার আশায় না থেকে নিজেকে যদি বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকি তাহলে আমাদের কখনো একা অনুভব করার কথা না। হয়ত বা এর ব্যতিক্রমও হতে পারে৷ নিজের বন্ধু নিজেই যদি হয়ে যাই তাহলে আমরা কখনোই একা না। ধন্যবাদ ভাইয়া সুন্দর একটি পোস্ট শেয়ার করার জন্য।

আপনি অন্য সবার কাছে ততক্ষণ মূল্যহীন যতক্ষণ না নিজের মূল্য বাড়ানোর জন্য কিছু একটা করছেন।

ভাইয়া একজন মানুষকে ইন্সপাইয়ার করার জন্য এই কথাটি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। কথাটি ছোট কিন্তু অন্তর্নিহিত ভাব খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

আপনি সঠিক ভাবে পরিশ্রম করে যেতে পারলে আপনি সফলতা একসময় ঠিকই পেয়ে যাবেন।

কথাটির বাস্তব প্রমান পেয়েছি কিছুদিন আগে। ৪ বছরের পরিশ্রম বিফলে যায় নি। আলহামদুলিল্লাহ।

আপনার পোস্টটি পড়ে খুব ভালো লাগলো ভাইয়া। খুব বাস্তবধর্মী কথাগুলোই খুব চমৎকার ভাবে তুলে ধরেছেন।
ধন্যবাদ আপনাকে।

·

আপনার পরিশ্রমের ফল আপনি পেয়েছেন। এটা শুনে ভালো লাগলো। আপনার জন্য শুভকামনা থাকলো।

ভাই অসাধারণ একটা পোস্ট। নিজেকে প্রমাণ করাই আসল বিষয়। যখন কেউ অসহায় হয়ে পড়ে তখন আশেপাশের মানুষ খুঁজে পাওয়া যায় না। কিন্তু যখন কেউ প্রতিষ্ঠিত হয় তার বন্ধুবান্ধবের কোনো অভাব হয় না। তাই আমি মনে করি কখনো হতাশা পড়ে নিজেকে ছোট ভাবা উচিন নয়। নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে, নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে না পারলে কারো কাছেই দাম পাওয়া যায় না।

নিজেকে মূল্যহীন ভাবাটা নির্বুদ্ধিতা ছাড়া আর কিছুই নয়। নিজেকে প্রস্তুত করে ঘুরে দাঁড়ালে পারিপার্শ্বিক অবস্থা ও পরিস্থিতি সবকিছুই বদলে যাবে। অনেক ভালো লেগেছে কথাগুলা।