বাঙালি রেসিপি " তেঁতুল দিয়ে রাজ হাঁসের চামড়ার চাটনি"

7일 전

বন্ধুরা
আপনারা সবাই কেমন আছেন? আশা করি আপনারা সবাই ভালো আছেন। আজ আমি আমার একটি পছন্দের রেসিপি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো। আমি টক জাতীয় খাবার খেতে খুবই পছন্দ করি।আর বিশেষ করে হাঁস বা মুরগির চামড়া দিয়ে টক ও চাটনি খেতে খুবই পছন্দ করি। এটি অনেক মজার একটি খাবার। বাড়ীতে হাঁস বা মুরগির মাংস আনলে তার চামড়া দিয়ে চাটনি রান্না করি। এই রান্নাটি আমি আমার মায়ের কাছ থেকে শিখেছি। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

IMG_20220508_212810.jpg

উপকরণ:
১.রাজ হাঁসের চামড়া
২. পাকা তেঁতুলের ক্বাথ - ১ কাপ
৩. সরিষার তেল - ৫ চামচ
৪. কালো সরিষা - ১ চামচ
৫. লবণ - ২ চামচ
৬. হলুদ - ২ চামচ

IMG_20220508_202142.jpg
রাজ হাঁসের চামড়া

IMG_20220220_094820.jpg
তেল, কালো সরিষা, লবণ ও হলুদ

IMG_20211128_195422.jpg
পাকা তেঁতুলের ক্বাথ
প্রস্তুত প্রণালী :
১. প্রথমে চামড়া গুলো ভালো করে পরিষ্কার করে নিতে হবে। পরিস্কার করা হয়ে গেলে সামান্য লবণ ও হলুদ মেখে নিতে হবে।

IMG_20220508_202239.jpg
২. চুলার উপর একটা কড়াই বসিয়ে দিতে হবে। কড়াই গরম হয়ে গেলে পরিমান মতো তেল দিয়ে দিতে হবে। এরপর এক চামচ কালো সরিষা দিয়ে দিতে হবে।

IMG_20220508_205248.jpg

IMG_20220508_205607.jpg
৩. সরিষা গুলো ভাজা হয়ে গেলে চামড়া গুলো দিয়ে ৫ মিনিটের মতো ভেজে নিতে হবে।

IMG_20220508_205644.jpg

IMG_20220508_205753.jpg
৪. ভাজা হয়ে গেলে তেঁতুলের ক্বাথ দিয়ে দিতে হবে একই সঙ্গে ১ কাপ জল দিয়ে দিতে হবে। এবার জল ফুটতে শুরু করলে পরিমান মতো লবণ ও হলুদ দিয়ে দিতে হবে। এবং ১০ মিনিটের মতো রান্না করে নিতে। এক পর্যায়ে উপরে তেল উঠে আসলে চুলার বন্ধ করে একটা পাত্রে নামিয়ে নিতে হবে।

IMG_20220508_211414.jpg

IMG_20220508_212654.jpg

IMG_20220508_212810.jpg
তৈরি হয়ে পাকা তেঁতুল দিয়ে রাজ হাঁসের চামড়ার চাটনি। এটি গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করতে হবে। আশা করি এই রেসিপিটি আপনাদের ভালো লাগবে।

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
STEEMKR.COM IS SPONSORED BY
ADVERTISEMENT
Sort Order:  trending

দিদি আপনার রেসিপিগুলো সবসময়ই আমার অনেক ভালো লাগে ।কারণ আপনি সবসময় নতুনত্ব নিয়ে আসেন ।আর সেই রেসিপি আমরা পূর্বে কখনো তৈরি করিনি । কিন্তু আপনার কাছেই প্রথম দেখা ।আজকের এই রেসিপিটি একদম নতুন আমার কাছে। খুব ভালো লাগলো এমন একটি রেসিপি দেখে।

চাটনি তো আমরা সবাই কমবেশি পছন্দ করি বৌদি। কিন্তু এভাবে চামড়া দিয়ে যে চাটনি হয় এটা এই প্রথম দেখা বিশ্বাস করুন। ভালো লাগলো খুব। রং টা যা এসেছে নাহ্ গো 👌👌👌 বৌদি আপনার হাতের রান্না খাওয়ার ইচ্ছে টা কিন্তু খুব বেড়ে গেছে। অপেক্ষায় থাকলাম। 🙏🙏

বৌদির রেসিপি মানেই নতুন কিছু। হাঁসের চামড়া দিয়ে তেঁতুলের চাটনি রেসিপি টা একেবারে ইউনিক এবং নতুন ছিল। এইধরনের চাটনি রেসিপি কখনো খাইনি এবং দেখে তো জিভে পানি চলে আসছে। রেসিপি টা অসাধারণ তৈরি করেছেন বৌদি। এবং পরিবেশনা টাও অনেক সুন্দর ছিল। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ এত সুন্দর লোভনীয় রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করে নেওয়ার জন্য।।

বৌদি আমি বোধহয় সবচেয়ে বেশি ইউনিক রেসিপি দেখেছি আপনার কাছ থেকেই!এই রেসিপি দেখা তো দূরে থাক কোনোদিন শুনিওনি।সত্যিই অসাধারণ!

রাজহাঁসের মাংস আমার খুবই ভালো লাগে চামড়ি টা বেশ খেতে ভালো লাগে। কিন্তু বৌদি কখনো তেঁতুল দিয়ে রাজ হাঁসের চামড়ার চাটনি তৈরি করে খাওয়া হইনি। আপনার রেসিপিটি দেখে ভিষণ খেতে ইচ্ছা করতেছে। একদিন আপনার মতো করে তৈরি করে খেয়ে দেখব বৌদি। সুন্দর একটি রেসিপি তৈরি করে আমাদের মাঝে উপহার দেওয়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

তেঁতুল দিয়ে রাজ হাঁসের চামড়ার চাটনি আমার কাছে অনেক ইউনিক লেগেছে বৌদি। আমি কখনো রাজ হাঁসের চামড়া দিয়ে এভাবে তেতুল দিয়ে কখনো রান্না করে খাইনি। আপনার রেসিপি দেখে মনে হচ্ছে খুবই সুস্বাদু হয়েছিল। হয়তো এভাবে খেতে অনেক মজাদার হয়। ধাপগুলো অনেক সুন্দরভাবে বর্ণনা করেছেন।আপনার উপস্থাপনা অসাধারণ হয়েছে। আপনার রেসিপির ধাপ গুলো দেখে আমি অবশ্যই একদিন বাসায় তৈরি করে খেয়ে দেখব। মজাদার ও ইউনিক একটি রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই বৌদি। আপনার জন্য শুভেচ্ছা রইল।

বৌদি আপনি আপনার মায়ের কাছ থেকে অত্যন্ত সুন্দর একটি রেসিপি শিখেছেন। আর এটি সাধারণত করে থাকেন যখন আপনাদের বাড়িতে হাঁস মুরগি আনা হয় তখন তার চামড়া দিয়ে এই রেসিপি তৈরি করেন। অনেক সুন্দর ভাবে রেসিপিটি আমাদের সামনে উপস্থাপন করেছেন। ধন্যবাদ আপনাকে।

রাজহাঁস খেয়েছি রাজহাঁসের মাংস অনেক ভালো লাগে খেতে। আপনি তেঁতুল দিয়ে রাজহাঁসের চামড়ার চাটনি এটা আমার কাছে তো একদমই ইউনিক লাগলো। কখনো শুনি নাই যে রাজহাঁসের মাংস দিয়ে চাটনি করা যায়। আপনি প্রয়োজনীয় উপকরণগুলি সঠিক মাত্রায় তুলে ধরেছেন। আপনার জন্য শুভকামনা রইল

এর আগেও মুরগির চামড়া দিয়ে তেতুল দিয়ে রেসিপি দেখলাম।আজকে হাঁসের চামড়া দিয়ে দেখলাম।টক টক লাগে খেতে অনেক মজায় হবে।বাসায় একদিন এভাবে রান্না করে দেখবো।ধন্যবাদ আপু আপনাকে।

ওয়াও বৌদি আপনি অনেক লোভনীয় একটি রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করেছেন। তেতুল দিয়ে রাজ হাঁসের চামড়ার চাটনি এই প্রথম রেসিপি দেখলাম। রাজ হাঁসের মাংস আমি দুবার খেয়েছি অনেক দিন আগে। তবে এত সুন্দর ভাবে তেতুল দিয়ে চাটনি তৈরি করা যায় তা আগে জানতাম না। আপনার কাছ থেকে নতুন একটি রেসিপি শিখে নিলাম বৌদি। আমি অবশ্যই বাসায় এই রেসিপি তৈরি করব।

আপনার কাছ থেকে ইউনিক সব রেসিপি আমি সব সময় খুঁজে পাই। তাই আমি আপনার রেসিপিগুলো ফলো করার চেষ্টা করি। আপনি আজ খুব সুন্দর ভাবে রাজহাঁসের চামড়া দিয়ে চাটনি বানিয়ে দেখিয়েছেন। এই চাটনি-খিচুড়ি সাথে গরম গরম পরিবেশন করলে সবাই খেতে চাইবে। তেতুল দেয়াতে এই চাটনি অনেক অসাধারণ লাগবে দেখে বোঝা যাচ্ছে। ধন্যবাদ বৌদি এত সুন্দর ভাবে চাটনি তৈরি করে দেখানোর জন্য।

টক জাতীয় খাবারের কথা শুনলে এমনিতেই জিভে জল চলে আসে বৌদি । তার ভিতরে এতো সুন্দর উপস্থাপনা , একদম প্রশংসনীয় ।

মুরগীর চামড়া দিয়ে আলু কুচির ভুনা আমার কাছে খেতে ভীষণ ভালো লাগে। তবে আপনার রেসিপিটি একদম ইউনিক হয়েছে। এরকম চাটনি কখনো খায়নি। খেতে মজা হয়েছে নিশ্চয় বউদি। নতুন এবং একটি ইউনিক রেসিপি শেয়ার করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ

উফ! আজতো আজ মুখের জল আটকাতে পারলাম না বৌদি, তেঁতুল আমি বেশ খেতে পারি, আর তেঁতুলের চাটনির কথা শুনলেতো আর ঠিক থাকতে পারি না, দেখেই খেতে মন চাইছে। তবে আপনার ভাবিকে দেখালাম রেসিপিটা, দুইজন মিলে একবার ট্রাই করবো বলে হি হি হি।

বৌদি রাজহাঁসের মাংস খেতে আমার খুব ভালো লাগে তবে আমি কখনো চামড়া ছাড়িয়ে খাইনি। আর সে কারণেই আলাদাভাবে চামড়া খাওয়া কখনো হয়নি। আপনার রেসিপিটি দেখে মনে হচ্ছে তেতুল দিয়ে রাজহাঁসের চামড়ার চাটনি খেতে অনেক সুস্বাদু হবে। যেহেতু রেসিপিটি আমার কাছে একেবারে নতুন তাই আপনার রন্ধন প্রণালী দেখে আমি খুব শীঘ্রই বাসায় ট্রাই করবো। আমি সব সময় রাজহাঁস পরিষ্কার করে আগুনে হালকা ঝলসে নিয়ে তারপর রান্না করে খেতে বেশি পছন্দ করি। কিন্তু আপনার রেসিপি দেখে এত ভালো লেগেছে আমি একবার হলেও ট্রাই করে দেখব। সুস্বাদু এই রেসিপির সুন্দর উপস্থাপনার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

সবসময়ই খুবই মজার কিছু রেসিপি এবং ইউনিক রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করে থাকেন বৌদি। আজকেও আপনি তেতুল দিয়ে রাজা হাঁসের চামড়ার চাটনি শেয়ার করেছেন এটা আসলে যে খুবই লোভনীয় একটি রেসিপি দেখেই বোঝা যাচ্ছে। কিন্তু কখনোই খাইনি আজকে আপনার রেসেপি দেখে শিখে নিলাম।

ওয়াও আমি কখনও চামড়ার চাটনি খাইনি।আজ প্রথম দেখলাম রাজহাঁসের চামড়ার চাটনি।মনে হয় অনেক সুস্বাদু হয়েছে। আপনার এই রেসিপিটি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্যে ধন্যবাদ। আপনার জন্য শুভ কামনা রইল।

রাজহাঁসের মাংস অথবা রাজহাঁসের চামড়া আমি এই পর্যন্ত একবারও খাইনি। তবে শুনেছিলাম এটা খুবই সুস্বাদু। খুব ইচ্ছা আছে এটা একবার টেস্ট করে দেখব।
আপনার শেয়ার করা তেতুল দিয়ে রাজহাঁসের চামড়া চাটনি রেসিপিটি দেখতে বেশ লোভনীয় লাগছে বৌদি। সত্যি বলতে রেসিপিটি দেখে আমার জিভে জল চলে এলো। কখনো রাজহাঁস খেলে অবশ্যই সেটার চামড়ি এভাবে খেয়ে দেখব। ধন্যবাদ বৌদি এত সুন্দর একটি রেসিপি আমাদের মাঝে উপস্থাপন করার জন্য।

তেঁতুল দিয়ে রাজ হাঁসের চামড়ার চাটনি রেসিপি খুবই লোভনীয় হয়েছে বৌদি। আপনি আপনার এই মজার রান্নার রেসিপি আপনার মায়ের কাছ থেকে শিখেছেন জেনে অনেক ভালো লাগলো। আসলে মায়ের হাতের রান্না সবসময় সেরা হয়। তাই আমরা সকলেই আমাদের মায়ের হাতের রান্না গুলো অনেক পছন্দ করি। তবে যাই হোক বৌদি অনেক সুন্দর ভাবে ইউনিক একটি রেসিপি তৈরি করে আমাদের মাঝে উপস্থাপন করেছেন এজন্য আপনাকে জানাচ্ছি ধন্যবাদ। সেই সাথে আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

তেতুল দিয়ে রাজহাঁসের চামড়ার চাটনি রেসিপি টা আজকে প্রথম শিখে নিলাম আপনার কাছ থেকে। এই রেসিপি টা অনেক ইউনিক আমি আজও কখনোই খাইনি রেসিপিটা। নতুন একটা জিনিস আপনার কাছ থেকে শীতে পেরে আমার অনেক ভালো লাগতাছে দিদি ,নতুন কিছু শেখার মধ্যে অন্যরকম একটা আনন্দ পাওয়া যায়। রেসিপিটা আপনি আমাদের মাঝে অনেক চমৎকারভাবে শেয়ার করেছেন দিদি। আপনার প্রতি শ্রদ্ধা রইল এমন চমৎকার একটি জিনিস আমাদের মাঝে উপস্থাপন করার জন্য।

সত্যি কথা বলতে বৌদি এরকম রেসিপি কখনো আমি আগে দেখি নাই। একবারে নতুন ধরনের একটি ইউনিক রেসিপি দেখলাম আমি। দেখে মনে হচ্ছে যে জিভে জল চলে আসলো। সামনে খাবার থাকলে হয়তো বা সবগুলো খেয়ে ফেলতে হবে। হাঁসের মাংসের চামড়া দিয়ে তেতুলের রেসিপি এক কথায় যেন অসাধারণ। সেইসাথে আপনার উপস্থাপনা অনেক ভাল ছিল। খুব সুন্দর করে সবকিছু বর্ণনা তুলে ধরেছেন আপনি আমাদের মাঝে। শুভকামনা রইল বৌদি এরকম সুন্দর কিছু রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য। শুভকামনা রইল আপনার জন্য।

বৌদি, এই রেসিপিটি সত্যিই অনেক ইউনিক ছিল। আমি এর আগে কখনো এমন রেসিপির কথা শুনেনি। দেখেই লোভ লাগছে 😋।
এই রেসিপিটি একদিন ট্রাই করে দেখতেই হবে। এমন রেসিপি না খেলে সুস্বাদু একটি খাবার মিস করে ফেলবো।
ধন্যবাদ বৌদি লোভনীয় একটি রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য। আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

বাড়িতে হাঁস বা মুরগি রান্না করলে সেগুলোর চামড়া আমি খেয়ে ফেলি। কিন্তু কখনো এভাবে আমি চাটনি বানিয়ে খাইনি। এভাবে চাটনি তৈরি করা যায় তাও আমি জানতাম না। আপনি যদি আমার জন্য একটু পাঠিয়ে দেন আমি মাইন্ড করবোনাহ🙈। আসলে আপু একদম ইউনিক একটা রেসিপি শেয়ার করেছেন। অনেক ভালো লেগেছে।

আপনি তেঁতুল দিয়ে রাজ হাঁসের চামড়ার চাটনির রেসিপিটা অসাধারণ ভাবে তৈরি করেছেন। দেখে আমার লোভ লেগে গেল। আপনি চমৎকার ভাবে এটা উপস্থাপন করেছেন। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ এই ধরনের রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

বৌদি আপনি বরাবরই খুব ইউনিক কিছু রেসিপি শেয়ার করে থাকেন। যতবারই দেখি অন্যদের চাইতে আপনার রেসিপি গুলো একদম আলাদা হয়ে থাকে। রাজহাঁসের চামড়া এবং তেতুলের সমন্বয় এটা কখনো দেখা হয়ে ওঠেনি, খাওয়া তো দূরের কথা। ধন্যবাদ আপনাকে নতুন একটা রেসিপি শেয়ার করার জন্য।

প্রিয় বৌদি, খুবই ইউনিক একটি রেসিপি শেয়ার করেছেন আজকে। তেতুল দিয়ে রাজহাঁসের চামড়ার চাটনি রেসিপি আমি কখনো খাইনি। আজই প্রথম আপনার পোষ্টের মাধ্যমে নতুন স্বাদের একটি রেসিপি দেখতে পেলাম শুধুমাত্র আপনার পোষ্টের মাধ্যমে। রেসিপিটি দেখেই বোঝা যাচ্ছে খেতে অনেক অনেক মজার হয়েছে। যেহেতু এই রেসিপিটি তেঁতুলের ক্বাথ ব্যবহার করা হয়েছে সেহেতু এই রেসিপির স্বাদ অতুলনীয় হবে বলে ধারণা করছি। এত মজাদার একটি রেসিপি এবং ইউনিক একটি রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ। শুভকামনা রইল আপনার জন্য।

তেতুল দিয়ে এ ভাবে মাংস রান্না করা যাবে কখনো তা জানা ছলনা। অবশ্য আমার নিজের তেঁতুল গাছ রয়েছে এবং আমি নিজেই তেঁতুল গাছ থেকে পাকা তেতুল পেড়ে নিয়ে আসি। যদি এই বিষয়ে আমার পূর্ব ধারণা থাকত তাহলে এতদিন রেসিপি তৈরি করে আপনাদের মাঝে শেয়ার করতাম। খুব ভালো লাগলো আপু। ধন্যবাদ।

তেঁতুল দিয়ে রাজ হাঁসের চামড়ার চাটনি রেসিপি শেয়ার করেছেন। দেখে তো লোভ সামলাতে পারলাম না খেতে ইচ্ছা করছে।‌‌ অনেক ভালো লাগলো দেখে। আপনার জন্য শুভ কামনা রইলো ভালো থাকুন।

বৌদি আপনার রেসিপি তেতুল দিয়ে রাজহাঁস চামড়া চাটনিরেসিপি এই প্রথম আমি দেখলাম এবং শুনলাম। এমনও রেসিপি হতে পারে যা আমার কল্পনায় ছিল না। কিন্তু যা আমাদের কল্পনায় আসেনা তা আপনার কল্পনায় আসে। আপনি খুব সুন্দর ভাবে একটি ইউনিক রেসিপি আমাদের মাঝে তুলে ধরেছেন। জানিনা এ রেসিপি টেস্ট কেমন হবে তবে আপনার হাতে রেসিপি অবশ্যই ভালো হতে হবে। এটি অত্যন্ত খেতে সুস্বাদু বলে মনে হচ্ছে। এত সুন্দর একটি রেসিপি ধাপে ধাপে আমাদের মাঝে পরিবেশন করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। ভালোবাসা নিবেন বৌদি।

দিদি,আপনার তৈরি করা রেসিপিটি আমার কাছে একদম একদম ইউনিক একটি রেসিপি মনে হচ্ছে। আমরা সচরাচর মুরগি অথবা হাঁসের চামড়া ভুনা করে খেয়ে থাকি। তবে দিদি,আপনার তৈরি রেসিপি দেখে আমি একটা নতুন রেসিপি শিখে নিলাম। তেতুল দিয়ে রাজহাঁসের চামড়ার চাটনি রেসিপিটি খুবই লোভনীয় লাগছে।তেঁতুল দিয়ে রেসিপি তৈরি করেছেন নিশ্চয় খেতে অনেক সুস্বাদু হয়েছে। দিদি, রেসিপির প্রতিটি ধাপ
খুব গুরুত্ব সহকারে আমি দেখেছি।কখনো যদি মুরগি চামড়া ঘরে আনা হয় তাহলে আপনার এই রেসিপিটি তৈরি রেখে দেখব আশাকরি অনেক সুস্বাদু হবে। ধন্যবাদ দিদি,এত সুস্বাদু একটি রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য 💐

বৌদি, কিছুদিন ধরে তুমি যে রেসিপি গুলো আমাদের সাথে শেয়ার করছ প্রত্যেকটা রেসিপি আমার কাছে নতুন। প্রত্যেকটা রেসিপি থেকে আমি নতুন কিছু শিখতে পারছি সব সময় । প্রতিদিন এমন নতুন নতুন রেসিপি শিখতে আমারও খুব ভালো লাগছে । আজ তুমি আমাদের সবার সাথে রাজহাঁসের চামড়া এবং তেতুল দিয়ে যে সুন্দর একটি রেসিপি শেয়ার করেছ তা খুবই লোভনীয় একটি রেসিপি বলে আমার মনে হচ্ছে। ফটোগ্রাফিতেই দেখে জিভে জল চলে আসছে। কোন একদিন তোমার শেয়ার করা আজকের রেসিপি বাড়িতে তৈরি করতে হবে। বৌদি, তোমাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ প্রতিদিন নতুন নতুন এরকম ইউনিক কিছু রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

আপনি খুবই চমৎকার ভাবে আমাদের মাঝে তেতুল দিয়ে রাজহাঁসের আমড়ার চাটনি রেসিপি শেয়ার করেছেন বৌদি। আপনি বরাবরই আমাদের মাঝে অনেক ইউনিক ইউনিক রেসিপি শেয়ার করে থাকেন আপনার আজকের এই রেসিপিটি আমার কাছে একদম নতুন এবং ইউনিক লেগেছে। সুন্দর উপস্থাপনার মাধ্যমে শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

মুরগির অথবা হাঁসের চামড়া আমার খুবই পছন্দের। কিন্তু চামড়া দিয়ে এভাবে যে চাটনি বানানো যায় তা আগে কখনো শুনিনি। আজকেই প্রথম দেখলাম । কিন্তু চাটনি দেখে মনে হচ্ছে যে খেতে খুবই মজা হয়েছে। দাদা নিশ্চয়ই অনেক পছন্দ করেছে তেতুল দিয়ে যেহেতু। খুব ভালো লেগেছে বৌদি আপনার ইউনিক রেসিপিটি।

মুরগীর হউক কিংবা হাঁসের চামড়ার হউক দিদি এই ধরণের রেসিপিগুলো আমার আমার খুবই ভালো লাগে ক্ষেতে। আপনার রেসিপিটা দেখে নিজের জিভের পানি ধরে রাখতে খুবই কষ্টকর হচ্ছে।আপনার রেসিপিটি লোভনীয় দেখাচ্ছে।ধন্যবাদ আপনাকে এত সুন্দর একটা রেসিপি শেয়ার করার জন্য।