Ronaldo Lima - Brazilian legendary football Player ⚽⚽

2개월 전

wp1946802-ronaldo-brazil-wallpapers.jpg
source




Ronaldo Luís Nazário de Lima


আজকে আমি নব্বই দশকের জনপ্রিয় একজন ফুটবল খেলোয়াড় সম্পর্কে আলোচনা করব। তিনি ব্রাজিলের একজন বিখ্যাত খেলোয়াড় রোনাল্ডো লিমা। রোনালদো নামটা শুনে আমাদের অনেকেই কিছুটা দ্বিধায় থাকতে পারে কিন্তু বর্তমানের বিখ্যাত ক্রিস্টিয়ানো রোলানদো আগেও বিশ্ব বিখ্যাত ব্রাজিলিয়ান রোনাল্ডো ছিলেন যিনি একজন তারকা ফুটবলার এবং বিশ্বব‍্যাপী তার খ‍্যাতির চূড়া ছিল। যারা 90 দশকের ব্রাজিলের ফুটবল খেলার ভক্ত ছিল তারা সবাই প্রায় রোনাল্ডোর খেলার ভক্ত ছিল। দর্শকরা বিশ্বকাপে ব্রাজিলের খেলার সময় অধির আগ্রহে তার গোল দেখার জন্য টিভির সামনে বসে থাকত।




জন্ম এবং পরিবার


রোনালদো লুইস নাজারিও দে লিমা ১৮ সেপ্টেম্বর ১৯৭৬ ব্রাজিলের রিও ডি জেনেরোতে জন্মগ্রহণ করেন। নেলিও নাজারিও দা লিমা এবং তার মায়ের নাম সোনিয়া দোস সান্তোস রাবাতা। রোনালদো তার বাবা-মায়ের তিন নম্বর সন্তান ছিলেন এবং তাদের পরিবার খুবই দারিদ্র্য ছিল।

দারিদ্র্যতার কারনে তার লেখাপড়ার ঠিকভাবে করতে অসুবিধা হয়। দারিদ্র্যতার জন্যই তার বাবা এবং মা এর মধ্যে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায় যখন তার বয়স ছিল ১১ বছর এবং তার পড়াশোনা অনিশ্চিত হয়ে যায়। এরপর থেকে তিনি জীবন সংগ্রামে এগিয়ে যান এবং ফুটবল খেলার প্রতি আগ্রহ বাড়ে।





wp1946816-ronaldo-brazil-wallpapers.jpg
source



রোনাল্ডো তার জীবনের সম্পূর্ণ ক‍্যারিয়ারে বিভিন্ন ক্লাব দলের সাথে যুক্ত ছিলেন । ক্লাব ফুটবলেও তিনি একজন উজ্জ্বল নক্ষত্র হিসেবে পরিচিত।


ক্লাবগোলম‍্যাচ
Cruzeiro (১৯৯৩-৯৪)১২১৪
PSV (১৯৯৪-৯৬)৪২৪৬
Barcelona (১৯৯৬-৯৭)৩৪৩৭
Inter Milan (১৯৯৭-২০০২)৪৯৬৮
Real Madrid (২০০২-২০০৭)৮৩১২৭
Milan (২০০৭-০৮)২০
Corinthians (২০০৯-১১)১৮৩১



ক্লাবের জীবনী


১৯৯৩ সালে তিনি সর্বপ্রথম ক্রুজিরো ক্লাবে যোগ দেন। এডাল ক্লাব ফুটবলে শুরুটা তারও বেশ ভালো ছিল এবং তিনি দলকে একটি শক্ত অবস্থানে নিয়ে যেতে সাহায্য করে। ১৪ ম্যাচে তিনি ১২ গোল করেছিলেন ক্রুজিরো ক্লাবে থাকা অবস্থায়। ক্রুজিরো এর পরে তিনি PSV ক্লাবে যোগ দেন সেখানেও তিনি ৪৬ ম্যাচে ৪২ টি গোল করেন। একটি মৌসুমী তিনি সর্বোচ্চ গোলদাতা নির্বাচিত হন।

এরিডিভাইস সর্বোচ্চ গোলদাতা হন ১৯৯৫ সালে তে PSV থাকা অবস্থায়। ১৯৯৬ - ১৯৯৭ সালে তিনি Barcelona ক্লাবে অবস্থান করেন। এখনকার মতো সেসময়ও রেকর্ড সংখ্যক খরচের মাধ্যমে খেলোয়াড়রা একদল থেকে আরেকদলে ট্রান্সফার হতো। তখনকার রেকর্ড ১৭ মিলিয়ন ডলারের মাধ্যমে রোনাল্ডো বার্সেলোনায় দলভুক্ত হন।

বার্সেলোনায় তিনি খুব ভালো ক্যারিয়ার গড়েছিলেন। ১৯৯৭ সালে তিনি সর্বোচ্চ গোলদাতা ছিলেন লা লিগায় । বার্সেলোনায় মোট ৩৭ ম‍্যাচে ৩৪ গোল করেন।বার্সেলোনার ক্যারিয়ার তার খুব বেশি দীর্ঘ ছিল না। সাথে চুক্তিতে কিছুটা সমস্যার কারণে তিনি এরপরে ইন্টার মিলানের যোগদান করেন। ইন্টার মিলানের রোনালদো ৫ বছরের খেলছেন।



wp1946799-ronaldo-brazil-wallpapers.jpg
source



১৯৯৭ - ২০০২ সাল পযর্ন্ত রোনাল্ডো ইন্টার মিলানে খেলেছিলেন। তখনকার আরেকটি রেকর্ড ১৯ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে রোনালদো ইন্টার মিলানের যোগদান করেন। ইন্টার মিলানের হয়ে তিনি ৬৮ ম‍্যাচ ৪৯ গোল করেন।এরপর ২০০২-২০০৭ সালে তিনি রিয়াল মাদ্রিদে খেলেছেন। রিয়াল মাদ্রিদে ৩৯ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময় চুক্তিবন্ধ হন।

ক্লাব ফুটবলে তার জীবনের সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলেছে রিয়াল মাদ্রিদে থাকা অবস্থায়। সেখানে তিনি অভিষেক ম্যাচেই দুটি গোল করেছিলেন। সর্বমোট ১২৭ ম‍্যাচ খেলে ৮৩ গোল করেছেন রিয়াল মাদ্রিদে খেলে। এরপর ২০০৭-২০০৮ সালে AC milan এবং Corinthians ক্লাবে খেলেছেন ২০০৮-২০১১ সাল পযর্ন্ত।




দলগোলম‍্যাচ
National৬২৯৮
U23
U17

আন্তজার্তিক ক‍্যারিয়ার জীবনী


রোলান্ডো আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শুরু হয় তাদের প্রতিবেশী এবং আরেকটি বিশ্ববিখ্যাত ফুটবল দল আর্জেন্টাইনরার বিপক্ষে ম‍্যাচে। রাকাইফে ১৯৯৪ সালে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে প্রীতি ম‍্যাচে প্রথম আন্তর্জাতিক ফুটবল খেলেন। ১৯৯৪ সালে আমেরিকায় ফুটবল বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়। তখন ব্রাজিলিয়ানদের জাতীয় দলে তার নাম থাকলেও কোন ম্যাচে অংশগ্রহণ করতে মাঠে নামেনি তিনি।

১৯৯৭ সালে ব্রাজিলের রোনাল্ডো ফিফার বর্ষসেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন। ১৯৯৮ সালে তিনি ফুটবল বিশ্বকাপ খেলায় অংশগ্রহণ করেন। সেই বিশ্বকাপে তিনি মোট ৪ টি গোল করেছেন। এবং সর্বমোট তিনটি পুরস্কার অর্জন করেছিলেন। তবে ১৯৯৮ বিশ্বকাপে ফাইনালে ফ্রান্সের কাছে হেরে যায় ব্রাজিল।



wp1946857-ronaldo-brazil-wallpapers.jpg
source



তবে ২০০২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ টা ছিল তার জীবনের সবচেয়ে সফলতম এবং স্মরণীয় বিশ্বকাপ। হলাম তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় সময়টা পার করেছিলেন সেই বিশ্বকাপে। ব্রাজিল ৫ম বারের মতো ফুটবল বিশ্বকাপ অর্জন করে। রোনাল্ডো মোট ৮ টি গোল করে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ গোলদাতা হন।

এবং বিশ্বকাপের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড় নির্বাচিত হন। ফাইনালে তিনি জার্মানির বিপক্ষে দুটি গোল করেছিলেন। ২০০৬ সালের বিশ্বকাপে তিনি মোট তিনটি গোল করেন। সব বিশ্বকাপ পরিসংখানে ১৫ সর্বোচ্চ গোল করে রেকর্ড গড়েছিলেন সেই সময়। তার আগে ১৪ গোলের রেকর্ডটি ছিল জার্মানির গার্ড মুলারের।




আন্তজার্তিক ক‍্যারিয়ারে জাতীয় দলের হয়ে ১৯৯৪-২০১১ সাল পর্যন্ত খেলেছেন। সর্বমোট ৯৮ ম‍্যাচে ৬২ গোল করেন। তার দিল ব্রাজিলের দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার সময় ব্রাজিল জাতীয়দল যেসব অর্জন করে।


Cuppositionyear
FIFA World CupChampion1994 (USA)
FIFA World CupChampion2002 (Korea & Japan)
FIFA World CupRunner-up1998 (France)
Copa AméricaChampion1997 (Bolivia)
Copa AméricaChampion1999 (Paraguay)
Copa AméricaRunner-up1995 (Uruguay)
FIFA Confederations CupChampion1997 (Saudi Arabia)

ব্রাজিলের একটি দারিদ্র পরিবার থেকে উঠে আসা রোলানদো তার প্রচেষ্টার মাধ্যমে বিশ্বফুটবলের একটি উজ্জ্বল নক্ষত্র।মাত্র ২১ বয়সে তিনি ballon d'or অর্জন করেন। সেটি ছিল ১৯৯৭ সালে। এরপর আবার ২০০২ সালে তিনি ফিফার ballon d'or অর্জন করেন। এছাড়াও তার সম্পূর্ণ ক‍্যারিয়ারে অসংখ্য রেকর্ড রয়েছে। ২০১১ তিনি ফুটবল থেকে অবসর গ্রহণ করেন।




Thanks for visiting


Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
STEEMKR.COM IS SPONSORED BY
ADVERTISEMENT
Sort Order:  trending

I am Brazilian supporter🇧🇷
So it's a legendary post to me...
Thanks for the post...

·

Thank you so much big brother 🙂

·
·

Welcome....

অনেক সুন্দর লিখেছেন৷ এমনই পোস্ট সামনেও দেখতে চাই।

·

ধন্যবাদ। ইনশাআল্লাহ

সুন্দর review করেন।

অনেক সুন্দর লিখেছেন ভাই।